রাবির সাবেক ছাত্র উপদেষ্টা অব্যাহতি নিয়ে বিভ্রান্তিকর তথ্য দিচ্ছেন

বিশ্ববিদ্যলয় প্রতিবেদক: ছাত্র উপদেষ্টার পদ থেকে অব্যাহতি নিয়ে অধ্যাপক লায়লা আরজুমান বানু বিভ্রান্তিকর তথ্য দিচ্ছেন বলে অভিযোগ করেছে রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন। গতকাল বুধবার বিশ্ববিদ্যালয়ের জনসংযোগ দপ্তরের প্রশাসক অধ্যাপক প্রভাষ কুমার কর্মকার স্বাক্ষরিত সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এ অভিযোগ করা হয়।
এর আগে গত ৮ মার্চ বিশ্ববিদ্যালয়ের রেজিস্ট্রার অধ্যাপক এম এ বারী স্বাক্ষরিত এক আদেশে ছাত্র উপদেষ্টার পদ থেকে অধ্যাপক লায়লা আরজুমান বানুকে অব্যাহতি দেয়া হয়।
জনসংযোগ দপ্তরের প্রশাসক অধ্যাপক প্রভাষ কুমার কর্মকার স্বাক্ষরিত বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, ছাত্র-উপদেষ্টার পদ থেকে অব্যাহতি দেয়ার পর অধ্যাপক লায়লা আরজুমান বানু এ বিষয়ে গণমাধ্যমে মনগড়া অসত্য ও বিভ্রান্তিকর তথ্য দিচ্ছেন যা বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষের মনোযোগ আকৃষ্ট করেছে। প্রকৃত পক্ষে লায়লা আরজুমান বানু ছাত্র-উপদেষ্টা হওয়ার পর থেকে বিভিন্ন সময়ে জরুরি প্রয়োজনে ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষ তাকে কর্মস্থলে পায়নি। এছাড়া বিভিন্ন সময় ছুটি না নিয়ে কর্মস্থলের বাইরে গেলেও পরবর্তীতে কর্তৃপক্ষকে অবহিত করার কোন প্রয়োজন মনে করেননি। সংশ্লিষ্ট দপ্তরে তার ছুটির বিষয়ে কোন রেকর্ডও পাওয়া যায়নি। এ ধরনের কর্তব্যে অবহেলার কারণে তাকে স্বাভাবিকভাবে অব্যাহতি দেওয়া।
নিজের দুর্বলতকে এড়াতে অধ্যাপক লায়লা আরজুমান বানু হাইকোর্টের রিটের বিষয়টি সামনে টেনে আনছেন উল্লেখ করে বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, দায়িত্বে অবহেলার বিষয়টিকে এড়িয়ে অপ্রাসঙ্গিকভাবে মহামান্য হাইকোর্টের একটি নির্দেশনার বিষয়কে টেনে এনে মূল বিষয়টিকে আড়াল করার চেষ্টা করছেন। তার এই সুকৌশলী বক্তব্যের মাধ্যমে আদালতের প্রতি অসম্মান প্রদর্শন করেছেন বলে মনে করেন বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ। একজন দায়িত্বশীল অধ্যাপকের কাছ থেকে এ ধরনের আচরণ অভিপ্রেত নয় বলেও বিজ্ঞপ্তিতে দাবি করা হয়।

শর্টলিংকঃ