- সোনালী সংবাদ - https://sonalisangbad.com -

রাণীনগরে পানিতে তলিয়ে যাচ্ছে কৃষকের স্বপ্ন

রাণীনগর (নওগাঁ) প্রতিনিধি: উজান থেকে নেমে আসা পাহাড়ি ঢলের পানি আর তিন দিন ধরে কয়েক দফা বৃষ্টিপাতে নওগাঁর ছোট যমুনা নদী এবং রক্তদহ বিলের পানি বৃদ্ধি পাওয়ায় উপজেলার চলতি মৌসুমে রোপা-আমন ধান তলিয়ে যেতে শুরু করেছে।

পানি বৃদ্ধির সাথে সাথে রাত দিন পাল্লা দিয়ে তলিয়ে যাচ্ছে কৃষকের স্বপ্ন। মাত্র কয়েক দিন আগে বন্যার পানি নেমে যাওয়ায় স্থানীয় চাষিরা কোমর বেঁধে রোপা-আমন ধান লাগালেও নিড়ানী দেওয়ার পরে চোখের সামনে ধান তলিয়ে যাওয়ায় কৃষকদের ঘুরে দাঁড়ানোর স্বপ্ন যেন ম্লান হতে চলেছে।

জানা গেছে, চলতি রোপা-আমন মৌসুমে উপজেলার ৮টি ইউনিয়নে প্রায় ১৮ হাজার ১শ ১৪ হেক্টর জমিতে রোপা আমন ধান লাগানো হয়। মধ্য জুলাইয়ে লাগাতার বৃষ্টিপাত আর নওগাঁর ছোট যমুনা নদীর পানি বৃদ্ধি পেয়ে উপজেলার নান্দাইবাড়ি নামক স্থানে নদী রক্ষা বাঁধ ভেঙে যাওয়ায় রাণীনগর উপজেলার বড় অংশ এবং পাশ্ববর্তী আত্রাই উপজেলার বেশ কিছু অংশ রোপা-আমন ধান লাগানোর আগে চাষ যোগ্য জমিগুলো পানিতে তলিয়ে যায় এবং সাথে সাথে বেশ কিছু চারাও নষ্ট হয়। ফলে মৌসুমের শুরুতেই এই এলাকার চাষীরা সঠিক সময়ে ধান লাগাতে পারে না।

ধীরে ধীরে বন্যার পানি নেমে যাওয়ার সুযোগ পেয়ে চারা সংকটের মাঝেও কোমর বেঁধে চাষিরা জমিতে রোপা-আমন ধান লাগায়। নিড়ানী শেষ হতে না হতেই গত তিন দিনের কয়েক দফা বৃষ্টিপাতে নদীর পানি বৃদ্ধি পেয়ে আত্রাই উপজেলার মির্জাপুর স্লুইচ গেটে এবং কাশিয়াবাড়ি স্লুইচ গেট দিয়ে লোকালয়ে পানি প্রবেশ করার সাথে যোগ হয়েছে রক্তদহ বিলের পানি।

বন্যার পানি বৃদ্ধি পাওয়ায় নিম্নাঞ্চল প্লাবিত হয়ে কৃষকের স্বপ্ন রোপা-আমন ধান তলিয়ে যাচ্ছে। যে পরিমাণ পানি দ্রুতগতিতে বাড়ছে তাতে আবহাওয়া ভালো না হলে প্রায় ৫শ হেক্টর জমির ধান তলিয়ে যাওয়ার আশঙ্কা রয়েছে বলে কৃষি অফিস বলছে।
উপজেলার ভবাণীপুর গ্রামের কৃষক আব্দুল জলিল জানান, আমি ৩ বিঘা জমিতে রোপা-আমন ধান লাগিয়েছিলাম হঠাৎ বৃষ্টিপাতে বিলের পানি বৃদ্ধি পাওয়ায় আমার ১ বিঘা জমির ধান বন্যার পানিতে তলিয়ে গেছে। এভাবে পানি বৃদ্ধি অব্যাহত থাকলে বাকি জমিও তলিয়ে যাওয়ার আশঙ্কা রয়েছে।

উপজেলা কৃষি অফিসার শহিদুল ইসলাম জানান, বন্যার কারণে এমনিতেই এই উপজেলায় রোপা আমন ধান লাগাতে দেরি হয়েছে। ধান লাগানোর কয়েক দিনের মধ্যে আবার বন্যার করাল গ্রাসে রোপা-আমন ধান তলিয়ে যেতে শুরু করেছে। ইতিমধ্যে প্রায় ১০০ হেক্টর জমির ধান তলিয়ে গেছে।

সোনালী/এমই