রাজশাহী কলেজ ছাত্রলীগ সাধারণ সম্পাদক গ্রেপ্তার

স্টাফ রিপোর্টার: রাজশাহী কলেজ ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক নাইমুল হাসান নাঈমকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। গতকাল বুধবার দুপুর পৌনে ২টার দিকে রাজশাহী নগরীর সিঅ্যান্ডবি মোড় থেকে তাকে গ্রেপ্তার করা হয়। চাঁদা না পেয়ে কোচিং সেন্টার ভাঙচুরের ঘটনায় করা মামলার প্রধান আসামি নাঈম।
এর আগে মামলা দায়েরের পরই অপর আসামি আসাদকেও গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। তাকে কারাগারে পাঠানো হয়েছে। গত রোববার রাতে বোয়ালিয়া থানায় নাঈমসহ অন্য আসামিদের বিরুদ্ধে মামলা করেন ইউনি কেয়ার কোচিংয়ের পরিচালক রায়হান হোসেন।
মামলার এজাহারে বলা হয়, রাজশাহী কলেজ ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক নাইমুল হাসান নাঈম ও তার অনুসারী আসাদ এবং মারুফসহ আরও বেশ কয়েকজন কোচিং সেন্টারে এসে মোটা অঙ্কের চাঁদা দাবি করে আসছিলেন। এর আগেও তারা বিভিন্নভাবে এখান থেকে চাঁদা আদায় করেছেন। গত শনিবার তারা আবারও ১০ হাজার টাকা চাঁদা দাবি করেন। চাঁদা দিতে অপারগতা প্রকাশ করলেও তারা জোরপূর্বক ৩ হাজার টাকা নিয়ে আসে। দাবিকৃত টাকার পুরোটা না দেয়ায় রোববার রাত ৮টার দিকে নাঈম ও তার অনুসারীরা কোচিং সেন্টারে ভাঙচুর করে।
কোচিং সেন্টারের পরিচালক রায়হান বলেন, গত বৃহস্পতিবার আসাদ ও মারুফ এসে তিন হাজার টাকা চাঁদা নিয়ে যায়। সেদিন তারা কোচিংয়ের জানালা, টেবিল, চেয়ার ভাঙচুরের পাশাপাশি এক কর্মচারীকে মারধরও করে। এরপর গত রোববার আবার তারা চাঁদা দাবি করে। তখন আমি টাকা দিতে অস্বীকৃতি জানাই। নাঈম জানায়, টাকা না দিলে আরও ভাঙচুর হবে। আমিও তাকে বলি যে, ভাঙচুর করতে আসলে আমিও প্রতিহত করার ব্যবস্থা করব। কিন্তু গত রোববার আমার অনুপস্থিতিতে কোচিংয়ের গেইট ভাঙচুর করে যায় নাইম, আসাদ ও মারুফসহ অনেকেই। পরে আমি থানায় অভিযোগ করি।
নগরীর বোয়ালিয়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) নিবারন চন্দ্র বর্মন বলেন, নাঈমকে গ্রেপ্তারের পর আদালতের মাধ্যমে কারাগারে পাঠানো হয়েছে।

শর্টলিংকঃ