রাজশাহী ও বগুড়ায় সড়ক দুর্ঘটনায় নিহত ৯, আহত ৩৫

সোনালী ডেস্ক: গতকাল বুধবার রাজশাহীর গোদাগাড়ী ও বগুড়ার শেরপুরে পৃথক সড়ক দুর্ঘটনায় ৯ জন নিহত ও ৩৫ জন আহত হয়েছে।
গোদাগাড়ী প্রতিনিধি জানান, গোদাগাড়ীতে বাস ও ট্রাকের মুখোমুখি সংঘর্ষে ২ চালক নিহত হয়েছে। আহত হয়েছে আরও ১৫ জন। গতকাল বুধবার ভোর ৬ টার দিকে রাজশাহী-চাঁপাইনবাবগঞ্জ মহাসড়কের বিজয়নগর এলাকায় এ দুর্ঘটনা ঘটে। নিহতরা হলো- তানোর উপজেলার চন্ডিপুর গ্রামের আব্দুল আজিজের ছেলে ট্রাক চালক মতিউর রহমান (৩৫) ও রাজশাহী মহানগরীর বেলপুকুর এলাকার কাশেমের ছেলে বাস চালক টিটুল (৪০)।
প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, ভোরে রাজশাহী থেকে ছেড়ে আসা একটি যাত্রীবাহী বাস চাঁপাইনবাবগঞ্জের দিকে যাচ্ছিল, সে সময় একটি ট্রাক রাজশাহীর দিকে যাওয়ার সময় মুখোমুখি সংঘর্ষে যাত্রীবাহী বাসটি উল্টিয়ে যায় এবং ট্রাকটি গাছের সাথে ধাক্কা খেয়ে দুমড়ে মুচড়ে যায়। সে সময় ঘটনাস্থলেই দুজন নিহত হয় এবং অন্তত ১৫ জন আহত হয়। পরে গোদাগাড়ী ফায়ার সার্ভিসের সদস্যরা আহতের উদ্ধার করে স্থানীয় স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করে।
গোদাগাড়ী ফায়ার সার্ভিস স্টেশন অফিসার বলেন, ঘটনাস্থলে এসে ট্রাকের পাশে একটি লাশ পড়ে থাকতে দেখি এবং যাত্রীবাহী বাসের নিচে চাপা পড়ে থাকা আরেকটি লাশ উদ্ধার করি।প্রেমতলী পুলিশ তদন্ত কেন্দ্রের ইনচার্জ আব্দুল বারী জানান, যাত্রীবাহী বাসটি চাঁপাইনবাবগঞ্জের দিকে যাওয়ার সময় ট্রাকের সাথে মুখোমুখি সংঘর্ষ হলে দু’জনের মৃত্যু হয়। এবং অন্তত ১৫ জন আহত হয়। খবর পেয়ে পুলিশ লাশ উদ্ধার করে ময়না তদন্তের জন্য রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে মর্গে পাঠানো হয়েছে বলে তিনি জানান।
বগুড়া প্রতিনিধি জানান, বগুড়ার শেরপুরে পৃথক সড়ক দুর্ঘটনায় ৭ জন নিহত হয়েছে। এ সময় আহত হয়েছে কমপক্ষে ২০ জন। বাস- ট্রাক এর মখোমুখি সংঘর্ষে এ হতাহতের ঘটনা ঘটে।
বগুড়ার শেরপুরে পৃথক সড়ক দুর্ঘটনায় সাত জন নিহত এবং আট জন আহত হয়েছেন। আহতদের বগুড়া শহীদ জিয়াউর রহমান মেডিকেল কলেজ (শজিমেক) হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। গতকাল বুধবার সকালে শেরপুর উপজেলার ঘোগা বটতলা ও মহিপুর জামতলা এলাকায় ঢাকা-রংপুর মহাসড়কে দুর্ঘটনাগুলো ঘটে। শেরপুর থানার ওসি হুমায়ুন কবির এর সত্যতা নিশ্চিত করেছেন। তবে তিনি হতাহতদের নাম পরিচয় নিশ্চিত করতে পারেননি। পুলিশ, ফায়ার সার্ভিস ও প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, বগুড়া থেকে ছেড়ে আসা ঢাকার বাইপাইলগামী লাব্বাইক পরিবহনের একটি বাস (ঢাকা মেট্রো-ব-১৫-৬৮৮৯) শেরপুরের ঘোগা বটতলা এলাকায় পৌঁছালে বিপরীত দিক থেকে একটি লবণ বোঝাই ট্রাকের সঙ্গে মুখোমুখি সংঘর্ষ হয়। এতে ট্রাকটি মহাসড়কের পাশে খাদে পড়ে গেলে লবণের বস্তার ওপর থাকা চার যাত্রী নিহত এবং ১০ জন আহত হন। শেরপুর থানা পুলিশ ও ফায়ার সার্ভিসের কর্মীরা হতাহতদের উদ্ধার করে বগুড়ার শজিমেক হাসপাতালে পাঠায়। দুর্ঘটনার পর অন্তত এক ঘণ্টা মহাসড়কে যান চলাচল বন্ধ ছিল। মেডিক্যাল পুলিশ ফাঁড়ির এসআই আবদুল আজিজ মন্ডল জানান, দুপুরে শজিমেকে চিকিৎসাধীন অবস্থায় আরও দু’জনসহ মোট ছয় ট্রাক যাত্রীর মৃত্যু হয়। অন্যদিকে ভোরে শেরপুর উপজেলার মহিপুর জামতলা এলাকায় পাথর ও লবণ বোঝাই দুটি ট্রাকের সংঘর্ষে মৃদুল হোসেন (২২) নামে এক ব্যক্তি নিহত হয়েছেন বলে জানিয়েছেন শেরপুর থানার ইন্সপেক্টর (তদন্ত) আবুল কালাম আজাদ। নিহত আজাদ জয়পুরহাটের পাঁচবিবি উপজেলার চেঁচড়া গ্রামের রফিকুল ইসলামের ছেলে।

শর্টলিংকঃ