রাজশাহীসহ ৩ জেলায় সড়ক দুর্ঘটনায় নিহত ৬

সোনালী ডেস্ক: গতকাল রোববার রাজশাহীর তানোর, বগুড়ার আদমদিঘি ও সিরাজগঞ্জের কোনাবাড়িতে সড়ক দুর্ঘটনায় ৬ জন নিহত হয়েছে।
মুÐুমালা প্রতিনিধি জানান, রাজশাহীর তানোর উপজেলায় যাত্রীবাহী বাসের ধাক্কায় রেজাউল ইসলাম (৩৮) নামের এক মোটরসাইকেল আরোহীর মৃত্যু হয়েছে। গতকাল রোববার বেলা সাড়ে ১২টার দিকে উপজেলার তানোর-মুন্ডুমালা সড়কে বুড়াবুড়িতলা নামক স্থানে এ দুর্ঘটনা ঘটে। নিহত রেজাউল তানোর পৌরশহরের সমাসপুর গ্রামের দুখু মÐলের ছেলে। সে পেশায় ধান ব্যবসায়ী। প্রত্যক্ষদর্শিরা জানান, দুপুরে ব্যবসায়িক কাজে রেজাউল মোটরসাইকেল যোগে তানোর সদর হয়ে মুন্ডুমালা যাচ্ছিলেন। তানোর-মুন্ডুমালা সড়কে বুড়াবুড়িতলা নামক স্থানে সামনের দিক থেকে কৌশিক পরিবহন (চট্র মেট্রো-জ ০৪-০১৭৮) নামে একটি বাস তাকে ধাক্কা দেয়। এতে মোটরসাইকেল থেকে ছিটকে পড়ে ওই বাসের চাকাতেই চাপা পড়েন রেজাউল। এতে ঘটনাস্থলেই মারা যান তিনি।
বিষয়টি নিশ্চিত করে তানোর থানার অফিসার ইনর্চাজ রাকিবুল হাসান জানান, দুর্ঘটনার পরপরই বাসটি জব্দ ও এর চালক তালাশ আলীকে আটক করা হয়েছে। মরদেহ ময়নাতদন্তের জন্য রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হয়েছে। এ ঘটনায় আইনী ব্যবস্থা নেওয়া হবে বলেও জানান ওসি।
বগুড়া প্রতিনিধি জানান, বগুড়ার আদমদিঘিতে ট্রাকের চাকায় পৃষ্ট হয়ে তোফাজ্জল হোসেন (৩৫) নামের এক মানসিক প্রতিবন্ধী যুবক নিহত হয়েছে। ঘটনাটি ঘটেছে গতকাল বিকাল পৌনে ৩টার দিকে আদমদিঘি রেলওয়ে স্টেশন এলাকার রেলগেট চত্বরে। প্রত্যক্ষদর্শি সূত্রে জানা যায়, আদমদিঘি উপজেলার কুন্দুগ্রাম ইউনিয়নের কড়ই ডাঁরার পাড়া গ্রামের আবুল হোসেনের ছেলে মানসিক ভারসাম্যহীন (পাগল) তোফাজ্জলকে গতকাল দুপুরে তার পরিবারের লোকজন আদমদীঘি উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসার জন্য নিয়ে আসে। হাসপাতালের কর্তব্যরত চিকিৎসক তার উন্নত চিকিৎসার জন্য বগুড়া শজিমেকে নেওয়ার পরামর্শ দিলে তারা বগুড়ায় যাওয়ার জন্য আদমদীঘি রেলওয়ে স্টেশনে ট্রেনের জন্য অপেক্ষা করছিল। এ সময় আবাদপুকুর থেকে আদমদীঘি গামী একটি ট্রাক স্টেশন এলাকায় পৌঁছলে পাগল তোফাজ্জল পরিবারের লোকের অলক্ষ্যে দ্রæত ছুটে গিয়ে চলন্ত ট্রাকের নিচে ঝাঁপ দিলে ঘটনাস্থলেই তার মৃত্যু হয়। এ ব্যাপারে আদমদীঘি রেলওয়ে স্টেশন মাস্টার মনোয়ার হোসেন বকুল জানান, বিষয়টি রেলওয়ে ঊর্দ্ধতন কর্তৃপক্ষকে অবহিত করা হয়েছে।
সিরাজগঞ্জ প্রতিনিধি জানান, সিরাজগঞ্জের কামারখন্দ উপজেলার কোনাবাড়িতে গতকাল রোববার ভোররাতে বাস ও ট্রাকের সংঘর্ষে চার মাদ্রাসাছাত্র নিহত হয়েছেন। আহত হয়েছেন ১০ জন। পুলিশ ও ফায়ার সার্ভিসের কর্মীরা হতাহত ব্যক্তিদের উদ্ধার করে স্থানীয় হাসপাতালে ভর্তি করেছেন। নিহত চার মাদ্রাসাছাত্র হলেন ইয়াসিন আলী (২৩), ইলিয়াস হোসেন (২২), খালেদ হাসান (২১) ও ইমরান হোসেন (১৪)। তারা সবাই ঢাকার তেজগাঁওয়ের উত্তর বেগুনবাড়ি ইসলামি মাদ্রাসার ছাত্র ছিলেন।
বঙ্গবন্ধু সেতু পশ্চিম থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) শহিদ আলম দুর্ঘটনার খবরের সত্যতা নিশ্চিত করেছেন। তিনি বলেন, নিহত চার ছাত্রসহ বেশ কয়েকজন নাটোরের মা এশায়ে খাদিজাতুল মহিলা মাদ্রাসার ইসলামি জলসায় যোগ দেন। অনুষ্ঠান শেষে মাদ্রাসার ছাত্ররা একটি বাসে করে ঢাকায় ফিরছিলেন। গতকাল ভোররাতে তাদের বহনকারী বাসটি বঙ্গবন্ধু সেতু পশ্চিম সংযোগ মহাসড়কের কোনাবাড়িতে পৌঁছালে বিপরীত দিক থেকে আসা ভুট্টাবোঝাই ট্রাকের সঙ্গে সেটির মুখোমুখি সংঘর্ষ হয়। এতে ঘটনাস্থলেই দুই মাদ্রাসাছাত্র নিহত এবং অন্তত ১২ জন আহত হন। পরে খবর পেয়ে পুলিশ ও ফায়ার সার্ভিসের কর্মীরা ঘটনাস্থলে পৌঁছে হতাহত ব্যক্তিদের উদ্ধার করেন। আহত ছাত্রদের সিরাজগঞ্জ ২৫০ শয্যাবিশিষ্ট ফজিলাতুন্নেছা মুজিব জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। চিকিৎসাধীন অবস্থায় আরও দুজন মারা যান বলে হাসপাতালের আবাসিক চিকিৎসা কর্মকর্তা ফরিদুল ইসলাম জানিয়েছেন।

শর্টলিংকঃ