- সোনালী সংবাদ - https://sonalisangbad.com -

যে শিক্ষা দিতে ঢাকাইয়া কুট্টির সেজেছিলেন সাকিব আল হাসান

অনলাইন ডেস্ক:

চাল-ডালের আড়তদার ঢাকাইয়া কুট্টির সাজে সাকিব আল হাসান। সহজ বাংলায় পুরান ঢাকার একজন ব্যবসায়ী। বেশ ভালোভাবেই চলছিল তার এ ব্যবসা। মেসার্স এস টু এস ট্রেডার্সের মালিক সাকিব।

হঠাৎ করে আশেপাশের মানুষের কথা শুনে বিনিয়োগ করেন শেয়ারবাজারে। কিছু না জেনে না বুঝে বিনিয়োগ করার ফলে বড় অঙ্কের লসের মুখ দেখতে হয় সাকিবকে। কীভাবে বিনিয়োগ করলে লসের মুখ দেখবেন না-এই শিক্ষা দিতেই ঢাকাইয়া কুট্টির সাজে দেখা যাবে সাবেক বিশ্বসেরা এই অলরাউন্ডারকে।

গতকাল শুক্রবার সন্ধ্যা সাতটায় ভ্যারিফায়েড ফেসবুক পেজ থেকে সাকিব আল হাসান একটি ছবি প্রকাশ করেন। সাদা ফতুয়ার সঙ্গে সাদা লুঙ্গি, দুই হাতের আঙুলে হরেক রকম আংটি আর হাতে কলম, সামনে খাতা নিয়ে হাসি মুখে পোজ দিচ্ছেন। পাশের টেবিলে রাখা ছোট বাটিতে চাল-ডালের নমুনা (স্যাম্পল)। এই ছবি মুহুর্তেই ভাইরাল হয় সামাজিক যোগাযোগের মাধ্যমগুলোতে।

শেয়ারবাজারে বিনিয়োগ করে কেউ রাতারাতি বনে যান কোটিপতি আবার কেউ মূলধন হারিয়ে বসে যান মাটিতে। নানা মানুষের নানা কথায় ভুল জায়াগায় ভুলভাবে বিনিয়োগ করার কারণেই হয় করূণ দশা। কোনো ব্যবসায়ী যাতে মানুষের কথায় ভুল জায়াগায় ভুলভাবে বিনিয়োগ না করে টিভি কমার্শিয়ালের (টিভিসি) মাধ্যমে সেই শিক্ষা দেবেন সাকিব।

অর্থ মন্ত্রণালয়ের অধীনে মূলধন বাজার নিয়ন্ত্রণকারী সরকারি সংগঠন বাংলাদেশ সিকিউরিটিজ অ্যান্ড এক্সচেঞ্জ কমিশনের (বিএসইসি) হয়ে এবার কাজ করেছেন তিনি।

এই টিভিসির পরিচালক সাকিবের বাল্য বন্ধু ও পরিচালক মাহাদী শাওন। দৈনিক আমাদের সময়কে মুঠোফোনে বিস্তারিত জানিয়েছেন টিভিসি-টি সম্পর্কে। শাওনের ভাষায় এটি অত্যন্ত এক্সক্লুসিভ কাজ।

তিনি বলেন, ‘না জেনে না বুঝে কেউ যাতে শেয়ারবাজারে টাকা বিনিয়োগ না করে বিএসইসি বিনিয়োগকারীদের সেই প্রশিক্ষণ দিয়ে থাকে। কীভাবে বিনিয়োগ করলে লাভের মুখ দেখা যাবে সেটাও শিখিয়ে দেওয়া হয়। আমরা টিভিসিতে দেখিয়েছি ঢাকাইয়া কুট্টি সাকিব মানুষের কথা শুনে ভুলভাবে বিনিয়োগ করে লস করে। পরে বিএসইসির এই প্রশিক্ষণ থেকে শিক্ষা নিয়ে সে লাভের মুখ দেখে।’

টিভিসির এই দৃশ্যধারণে দুদিন অংশ নেন সাকিব। গতকাল তার অংশের দৃশ্যধারণ শেষ হয়। আজ শনিবার বাকি অংশগুলোর দৃশ্যধারণ করা হবে। সাকিবের দৃশ্যধারণ হয় রাজধানীর মিরপুর বেড়িবাধ এলাকায় অবস্থিত প্রিয়াংকা কালচারাল ইনস্টিটিউটে।

শাওন জানান, সরকারি এই বিজ্ঞাপণের কাজ করার কথা ছিল গত মার্চে। কিন্তু লকডাউনের কারণে কাজ বন্ধ হয়ে যায়। এটা দেখা যাবে আগামী মাসের (অক্টোবরের) শেষের দিকে।

সোনালী সংবাদ/এইচ.এ