যেসব শিক্ষার্থীদের দিতে হবে পরীক্ষা হবে

অনলাইন ডেস্ক: কারিগরি শিক্ষার্থীদের পরীক্ষা দেয়ার কোনো বিকল্প নেই বলে জানিয়েছেন শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনি। অন্যান্য শিক্ষার্থীদের পড়াশুনার বিষয়টি তাত্ত্বিক হলেও কারিগরি শিক্ষার্থীদেরকে হাতে কলমে শিখতে হয়।

বুধবার দুপুরে মাধ্যমিকের বার্ষিক পরীক্ষার বিষয়ে ভার্চুয়াল প্রেস কনফারেন্সে শিক্ষামন্ত্রী এসব কথা বলেন।

শিক্ষামন্ত্রী বলেন, ‘কারিগরির নবম ও একাদশের পরীক্ষাগুলো হওয়ার প্রয়োজন রয়েছে। তাদের পড়াশোনার যে ধরন, তাতে পরীক্ষা নেয়া জরুরি। তাদের পরীক্ষার্থীর যে সংখ্যা খুব বেশি তাও নয়। তাছাড়া বিভিন্ন ট্রেডে ভাগ করা রয়েছে। তাদের পরীক্ষা কখন কিভাবে নিতে পারি সকল শিক্ষা বোর্ড মিলে আলোচনায় বসেছিল। কারিগরি শিক্ষা বোর্ড থেকেও আমাদের কাছে সুপারিশ পেশ করেছে, শিগগিরই আমরা সিদ্ধান্ত জানিয়ে দেবো।’

ডিপ্লোমা শিক্ষার্থীদের বিষয়ে শিক্ষামন্ত্রী বলেন, ‘শিক্ষার্থীরা বার বার আমাদের জানাচ্ছে তারা কয়েক মাস ধরে আমরা অপেক্ষা করছে, চাকরি জীবনে প্রবেশ করতে পারছে না। পরীক্ষার্থীর পরিবারের জন্যও এটি বড় বোঝা। কিন্তু তারপরও কর্মজীবনে প্রবেশ করতে পরীক্ষা না নিলে তারা সমস্যায় পড়বেন।’

যেসব কোর্সের পরীক্ষা শেষ হয়ে গেছে, তাদের বিষয়ে শিক্ষামন্ত্রী বলেন, ‘যাদের শুধু মৌখিক পরীক্ষা বাকি রয়েছে তাদেরটা আমরা দেখবো। কিন্তু সামাগ্রিকভাবেই কারিগরির সিদ্ধান্তগুলো আমরা জানাবো। তবে যাদের পরীক্ষা কিছু বাকি রয়েছে, তাদের পরীক্ষা নিতেই হবে। পরীক্ষা ছাড়াই যদি পাস করে তাহলে চাকরিদাতারা সেভাবে মূল্যায়ন করবে না। সে কারণে আরেকটু ধৈর্য করতে হবে। পরীক্ষা নেয়া হবে তবে কিভাবে নেবো সে বিষয়টি নিয়ে আমরা কাজ করছি, সেটি আমরা জানিয়ে দেবো।’

ভার্চুয়াল এই প্রেস ব্রিফিংয়ে আরো যুক্ত ছিলেন, শিক্ষা উপমন্ত্রী মহিবুল হাসান চৌধুরী নওফেল, মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা বিভাগের সচিব মো. মাহবুব হোসেন, কারিগরি ও মাদ্রাসা শিক্ষা বিভাগের সচিব মো. আমিনুল ইসলাম খান, মাধ্যমিক ও উচ্চশিক্ষা অধিদপ্তরের মহাপরিচালক অধ্যাপক ড. সৈয়দ মো. গোলাম ফারুক।

সোনালী/এমই

শর্টলিংকঃ