যুক্তরাষ্ট্রে স্ত্রী হত্যার পর বাংলাদেশি হাবিবের আত্মহত্যা

অনলাইন ডেস্ক:

স্ত্রী সৈয়দা সোহেলী আকতার চায়নাকে (৪৩) গুলি করে হত্যার পর স্বামী আবুল আহসান হাবিব (৫২) একই বন্দুকের গুলিতে আত্মহত্যা করেছেন।

যুক্তরাষ্ট্রের আরিজোনা স্টেটের ফিনিক্স সিটির লাভিন এলাকার নিজ বাসায় ২৭ সেপ্টেম্বর রবিবার সকালে এ হত্যাকাণ্ডে কম্যুনিটিতে চাঞ্চল্য সৃষ্টি হয়েছে।

দাম্পত্য কলহের কারণেই মাগুরার সন্তান হাবিব ও চায়না এমন করুণ পরিণতির শিকার হলেন বলে স্থানীয় প্রবাসীরা এ সংবাদদাতাকে জানান। ফিনিক্স পুলিশ জানায়, গুলিতে স্বামী-স্ত্রী নিহত হবার কারণ উদঘাটনে তদন্ত চলছে।

এই সিটিতে বসবাসরত ফোবানা’র প্রধান নির্বাচন কমিশনার মাহবুব রেজা রহিম রবিবার সন্ধ্যায় বাংলাদেশ প্রতিদিনকে জানান, পারিবারিক ভিসায় যুক্তরাষ্ট্রে এসে দুই পুত্রসহ এই দম্পতি ২০০৮ সালে আরিজোনায় বসতি গড়েন।

স্বামী-স্ত্রী উভয়েই কর্মজীবী। সোহেলী আকতারের একটি বিউটি পারলার রয়েছে। স্বামী কাজ করতেন একটি রেস্টুরেন্টে। করোনার কারণে উভয়েই বেকার হয়ে পড়েছেন।

ফিনিক্স পুলিশের মুখপাত্র সার্জেন্ট টমী থমসন জানান, ৯৯১ এর অপারেটর যখন চায়নার সাথে কথা বলছিলেন সে সময়েই গুলি বর্ষণের দুটি শব্দ শোনেন। সেটি ছিল ৯টা ৫১ মিনিটের ঘটনা। দ্রুত বাসায় এসেও হত্যাকাণ্ড ঠেকানো সম্ভব হয়নি বলে টহল পুলিশের কর্মকর্তারা জানান।

পুলিশ আরও জানায়, বন্দুকটি লাশের পাশে পড়ে ছিল। পুলিশের ধারণা, হাসিব বাসার বাইরে যাবার পরই হাবিব ৫ মিনিটের মধ্যে বাসায় ফেরেন এবং চায়নাকে গুলি করে হত্যার পরই আত্মহত্যা করেছেন হাবিব। এতদসত্বেও পুলিশ বিস্তারিত তদন্ত চালাচ্ছে প্রকৃত কারণ উদঘাটনের জন্যে।

সোনালী সংবাদ/এইচ.এ

শর্টলিংকঃ