যাত্রীর মোবাইলফোন নিয়ে পালাতে গিয়ে হাতেনাতে ধরা রিকশাচালক

স্টাফ রিপোর্টার: হাতে মুঠোফোন থাকায় রিকশায় উঠতে পারছিলেন না এক কলেজছাত্রী। সহায়তার হাত বাড়ালেন রিকশাচালক। মুঠোফোনটি তার হাতে দিয়ে যাত্রীকে উঠতে বললেন রিকশায়। সরল বিশ্বাসে যাত্রীও নিজের ফোনটি দিলেন রিকশাচালকের হাতে। কিন’ তখনই যাত্রী রেখেই রিকশা নিয়ে পালাতে শুর্ব করলেন চালক। অবশ্য বেশি দূর তিনি পালাতে পারেননি। ধরা পড়েছেন।
এই রিকশাচালকের নাম মো. সিয়াম (২৪)। রাজশাহীর বাগমারা উপজেলার দ্বীপনগর গ্রামে তার বাড়ি। বাবার নাম আবদুল খালেক। সিয়াম একজন মাদকবিক্রেতা। রাজশাহী নগরীতে রিকশা চালানোর পাশাপাশি হেরোইনের কারবার করতেন তিনি। পুলিশ তার কাছ থেকে ৮ গ্রাম হেরোইনও উদ্ধার করেছে। এ নিয়ে তার বির্বদ্ধে নগরীর রাজপাড়া থানায় একটি মামলা হয়েছে।
রাজপাড়া থানা পুলিশ জানায়, গতকাল মঙ্গলবার বেলা ১১টার দিকে রাজশাহী কেন্দ্রীয় কারাগার সংলগ্ন নাককাটি মন্দিরের সামনে থেকে যাত্রীর মুঠোফোন নিয়ে পালাচ্ছিলেন সিয়াম। তখন ওই কলেজছাত্রী চিৎকার শুর্ব করেন। এ সময় একটি অটোরিকশা সিয়ামের রিকশার পিছু নেয়। ফায়ার সার্ভিসের মোড়ে এসে অটোরিকশার দুই যাত্রী সিয়ামকে ধরে ফেলেন। এ সময় সেখানে তাকে টহল পুলিশের হাতে তুলে দেয়া হয়। পুলিশ তলৱাশি করে তার কাছ থেকে ৮ গ্রাম হেরোইন উদ্ধার করে।
রাজপাড়া থানার সহকারী উপপরিদর্শক (এএসআই) শিরিন সুলতানা জানান, যে ছাত্রীর মুঠোফোন নিয়ে সিয়াম পালাচ্ছিলেন তিনি থানায় মামলা করতে রাজি হননি। তিনি মুঠোফোন নিয়ে চলে গেছেন। তবে সিয়ামের কাছে হেরোইন পাওয়ায় পুলিশ বাদী হয়ে তার বির্বদ্ধে মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ আইনে মামলা করেছে। বিকালে তাকে আদালতের মাধ্যমে কারাগারেও পাঠানো হয়েছে।

শর্টলিংকঃ