মোহনপুরে স্ত্রীকে হত্যা স্বামী গ্রেপ্তার

মোহনপুর প্রতিনিধি: মোহনপুরে স্বামীর পরকীয়ায় বাধা ও যৌতুকের জন্য স্ত্রীকে শ্বাসরোধ করে হত্যার অভিযোগ উঠেছে। নিহতের ভাই হাসেন আলী বাদী হয়ে থানায় স্বামী ও শাশুড়িকে আসামি করে মামলা দায়ের করেছেন। নিহতের লাশ উদ্ধারের সময় ঘটনাস’ল থেকে স্বামী মামুন রশীদকে (৩২) গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। ঘটনার পর থেকে শাশুড়ি মাজেদা বেওয়া (৫৫) পলাতক রয়েছে। নিহত গৃহবধূর নাম শিরিনা বেগম (৩০)। আসামি পুলিশের কাছে হত্যাকা-ের কথা স্বীকার করেছে। পুলিশ নিহত শিরিনা বেগমের লাশ উদ্ধার করে ময়না তদন্তের জন্য রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের মর্গে পাঠিয়েছে।
থানা সূত্রে জানা গেছে, উপজেলার সাঁকোয়া গ্রামের মৃত ইব্রাহীম হোসেনের ছেলে মামুন রশীদের (৩২) সাথে একই গ্রামের আবুল কাশেমের মেয়ে শিরিনা বেগমের (৩০) বিয়ে হয়। তাদের ঘরে ২টি সন্তান রয়েছে। হত্যার আগে গত সোমবার সন্ধ্যার পর মামুন রশীদ তার ৮ বছরের মেয়েকে নানির কাছে ও ৪ বছরের ছেলেকে মামা জাহাঙ্গীরের বাড়িতে রেখে আসে। দুই সন্তানের জনক মামুনের পরিবারে পরকীয়া প্রেমে ও যৌতুকের জন্য দীর্ঘদিন ধরে ঝগড়া-বিবাদ চলে আসছিল। স্ত্রী শিরিনা প্রায়ই সময় তার স্বামীকে পরকীয়া করতে বাধা দিয়ে আসতো। এ নিয়ে উভয়ের মধ্যে কলহ সৃষ্টি হয়।
নিহত গৃহবধূর আত্মীয়রা জানান, পরকীয়া প্রেমে বাধা ও যৌতুকের জন্য প্রায় সময় শিরিনাকে নির্যাতন করত। এর জের ধরে গত সোমবার মধ্যরাতে স্বামী-স্ত্রীর মধ্যে ঝগড়া হয়। ঝগড়ার পর শিরিনাকে মারধরের পর শ্বাসরোধ করে হত্যা করেছে তার স্বামী মামুন। মামলার বাদী গৃহবধূ শিরিনার ভাই হাসেন আলী হত্যার বিচার দাবি করে বলেন, মামুনকে পরকীয়ায় বাধা দেয়া ও যৌতুকের জন্য তার বোনকে নির্যাতনের পর শ্বাসরোধ করে হত্যা করা হয়েছে।
থানার ওসি মোস্তাক আহম্মেদ জানান, লাশ উদ্ধার করে মর্গে প্রেরণ করা হয়েছে। স্বামীকে গ্রেপ্তারের পর জেল-হাজতে প্রেরণ করা হয়েছে। শাশুড়িকে গ্রেপ্তারের জন্য পুলিশি অভিযান অব্যাহত রয়েছে।

শর্টলিংকঃ