মার্চের মধ্যে জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের পরীক্ষা নেওয়ার দাবি ছাত্রমৈত্রীর

  • 141
    Shares

স্টাফ রিপোর্টার: মার্চ মাসের মধ্যে জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের অধীনস্থ বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের পিছিয়ে যাওয়া সকল পরীক্ষা গ্রহণের দাবি জানিয়েছেন ছাত্রমৈত্রীর রাজশাহী জেলা ও মহানগর কমিটির নেতৃবৃন্দ।

শনিবার (৬ মার্চ) শহরের সাহেববাজার জিরোপয়েন্টে আয়োজিত এক মানববন্ধন থেকে তারা এ দাবি জানান। ছাত্রমৈত্রীর রাজশাহী জেলা ও মহানগর কমিটির উদ্যোগে এই মানববন্ধনের আয়োজন করা হয়।

মানববন্ধনে বক্তারা বলেন, বর্তমান সময়ে বিনোদন পার্ক থেকে শুরু করে গণপরিবহনসহ সবকিছুই স্বাভাবিকভাবে চলছে। কিন্তু তথাকথিত করোনা সংক্রমণের অজুহাতে সরকার শুধুমাত্র শিক্ষার্থীদের পরীক্ষা ও ক্লাস আটকে রেখেছে। এক দেশে দুই নীতি কোনভাবেই চলতে পারে না। শিক্ষার্থীরা একবছর লেখাপড়া থেকে বাইরে থাকায় একদিকে তাদের সেশনজট যেমন বাড়ছে, অন্যদিকে হতাশাগ্রস্ত হয়ে অনেকেই লেখাপড়া ছেড়ে দিচ্ছে।

মানববন্ধনে বলা হয়, গতবছর জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের তিন থেকে চারটি পরীক্ষাগ্রহণ বাকি ছিল। আর স্নাতকোত্তর পর্বের পরীক্ষা ২০১৯ সালে নেওয়ার কথা ছিল। করোনা মাহমারীর কারণে তা স্থগিত করা হয়। পরে আবার চলতি বছরের শুরুতে পরীক্ষা নেওয়ার সিদ্ধান্ত হয়। পরীক্ষা ঠিকভাবে চলছিল। কিন্তু এরই মধ্যে হঠাৎ পরীক্ষা বন্ধের সিদ্ধান্তে শিক্ষার্থীরা পড়েছে চরম অনিশ্চয়তায়।

ঘন্টাব্যাপী চলা মানববন্ধনে ছাত্রমৈত্রীর নেতারা বলেন, দেশের শিক্ষা ব্যবস্থা নিয়ে এমন উদাসীনতা ও খামখেয়ালি মনোভাব আমরা প্রত্যাশা করি না। সবকিছু স্বাভাবিকভাবে চলতে পারলে পরীক্ষা গ্রহণও সম্ভব। মার্চ মাসের মধেই সারা দেশে সমন্বিত পরিকলল্পনা গ্রহণের মধ্য দিয়ে স্বাস্থ্যবিধি মেনে পিছিয়ে যাওয়া সকল পরীক্ষা শেষ করতে হবে।

রাজশাহী মহানগর ছাত্রমৈত্রীর সভাপতি ওহিদুর রহমানের সভাপতিত্বে মানববন্ধনে সংহতি বক্তব্য দেন মহানগর ওয়ার্কার্স পার্টির সাধারণ সম্পাদক দেবাশিষ প্রামানিক দেবু। এছাড়াও বক্তব্য দেন- সম্পাদকমণ্ডলির সদস্য নাজমুল করিম অপু, সাবেক ছাত্রনেতা সম্রাট রায়হান, বোয়ালিয়া থানা ছাত্রমৈত্রীর সাধারণ সম্পাদক জাহিদ হাসান, মতিহান থানার সভাপতি পলাশ আহমেদ প্রমুখ।

মানববন্ধন সঞ্চালনা করেন মহানগর ছাত্রমৈত্রীর সহ-সভাপতি সাকিব আল হাসান।

সোনালী/জেআর

শর্টলিংকঃ