ভেন্টিলেশনে রাখা হয়েছে সৌমিত্রকে

অনলাইন ডেস্ক: গত তিন সপ্তাহ ধরে পশ্চিমবঙ্গের বেলভিউ হাসপাতালে ভর্তি রয়েছেন টলিউডের বিখ্যাত অভিনেতা সৌমিত্র চট্টোপাধ্যায়। বর্তমানে তার শারীরিক অবস্থা গভীর সংকটে। রবিবার বেলভিউ হাসপাতালের চিকিৎসকরা জানিয়েছিলেন, অভিনেতা ভেন্টিলেশনে রাখা হতে পারে। সেই মতো সোমবার সৌমিত্রকে ভেন্টিলেশনে নেয়া হয়েছে।

হাসপাতাল সূত্রে জানানো হয়েছে, প্রবীণ এই অভিনেতার রক্তে অনুচক্রিকার পরিমাণের কিছুটা উন্নতি হয়েছে। তবে চিকিৎসকদের উদ্বেগে রেখেছে তার কিডনির অবস্থার অবনতি। রক্তে ইউরিয়ার পরিমাণও অনেক বেশি। চিকিৎসকরা বলছেন, সৌমিত্রের এক্স রে রিপোর্টে নতুন প্যাচ দেখা দিয়েছে। আশঙ্কা রয়েছে সেকেন্ডারি নিউমোনিয়া সংক্রমণের।

মঙ্গলবার পর্যন্ত ২২ দিন হল সৌমিত্র চট্টোপাধ্যায় হাসপাতালে। এর মধ্যে আইসিইউতেই রয়েছেন ১৯ দিন। বয়স এবং কো-মর্বিডিটি তার চিকিৎসার পথে বাধা হয়ে দাঁড়াচ্ছে বলে জানিয়েছেন চিকিৎসকরা। রক্তে হিমোগ্লোবিন এবং অনুচক্রিকার পরিমাণ কম থাকায় আগেই ব্লাড ট্রান্সফিউশন করা হয়েছে। সেই সঙ্গে চিকিৎসকদের চিন্তায় রেখেছে তার শরীরে সোডিয়াম, পটাশিয়ামের তারতম্য।

করোনা আক্রান্ত অবস্থায় সৌমিত্রকে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছিল। তবে গত সপ্তাহে তার করোনা রিপোর্ট নেগেটিভ আসে। চিকিৎসাতেও সাড়া দিতে থাকেন। কিন্তু সম্প্রতি তার শারীরিক অবস্থা আবার সংকটজনক হয়ে পড়ে। রক্তে অক্সিজেনের পরিমাণে তারতম্য হওয়ায় ইতোমধ্যে তাকে বায়োপ্যাপ সাপোর্ট দেয়া হয়েছে।

জটিলতা আরও বাড়িয়েছে অভিনেতার মস্তিষ্কে সংক্রমণ অভিঘাত (কোভিড এনসেফ্যালোপ্যাথি) এবং স্নায়বিক অবস্থা। এই পরিস্থিতিতে তার চেতনার মাত্রা ক্রমশ নামছে বলে জানিয়েছেন চিকিৎসকরা। তন্দ্রাচ্ছন্ন অবস্থায় রয়েছেন তিনি। নতুন করে স্নায়ুরোগ সংক্রান্ত জটিলতা দেখা না গেলেও সৌমিত্রের উদ্বেগজনক স্নায়বিক অবস্থা বাড়িয়ে দিয়েছে চিন্তা।

বেলভিউ হাসপাতালের চিকিৎসকদের বক্তব্য, আচ্ছন্ন চেতনায় মস্তিষ্কে সংক্রমণের অভিঘাতে রোগীর বয়স ও আনুষঙ্গিক রোগগুলোই বিপজ্জনক হতে পারে। হাসপাতালের দাবি, স্নায়ুরোগ বিশারদসহ সব চিকিৎসক সৌমিত্রবাবুর চেতনা ফেরাতে ইনটিউবেশনের উপরে নির্ভর করছেন।

সোনালী/আরআর

শর্টলিংকঃ