ভূগর্ভস’ লাইন নির্মাণের উদ্যোগ

সোনালী ডেস্ক: বর্তমানে দেশে বিদ্যুৎ চাহিদার প্রায় দ্বিগুণ উৎপাদন সক্ষমতা রয়েছে। কিন’ তারপরও সরকারের পৰে দেশে নিরবচ্ছিন্ন বিদ্যুৎ সরবরাহের ঘোষণা দেয়া সম্ভব হচ্ছে না। নিরবচ্ছিন্ন বিদ্যুৎ সরবরাহ নিশ্চিত করতে হলে বিতরণ অবকাঠামো উন্নত করতে হবে। আর ওই প্রক্রিয়ায় প্রথমেই বিতরণ লাইন মাটির নিচে নিয়ে যাওয়ার কাজ করতে হবে। পাশাপাশি ধারাবাহিকভাবে বিদ্যুতের সাবস্টেশনও মাটির নিচে নিয়ে যেতে চায় সরকার। ওই লৰ্যে বাংলাদেশ বিদ্যুৎ উন্নয়ন বোর্ড (পিডিবি) নিজস্ব বিতরণ এলাকার কিছু অংশে বিদ্যুতের বিতরণ লাইন মাটির নিচে নিয়ে যাওয়ার উদ্যোগ নিয়েছে। আবার ঢাকার দুই বিদ্যুৎ বিতরণকারী কোম্পানি ডিপিডিসি এবং ডেসকোও ভূগর্ভস’ লাইন নির্মাণের উদ্যোগ নিয়েছে। সেক্ষেত্রে পিছিয়ে ছিল পলৱী বিদ্যুৎতায়ন বোর্ড (আরইবি)। এবার তারাও বিতরণ লাইন মাটির নিচে নেয়ার বড় প্রকল্প হাতে নিল। বিদ্যুৎ বিভাগ সংশিৱষ্ট সূত্রে এসব তথ্য জানা যায়।
সংশিৱষ্ট সূত্র মতে, বর্তমানে দেশে মোট বিদ্যুতের উৎপাদন ২৩ হাজার মেগাওয়াট। তার বিপরীতে চাহিদা গ্রীষ্মেই ১৪ হাজার মেগাওয়াটের বেশি নয়। ফলে এখন গ্রীষ্মেই অনেক বিদ্যুৎ কেন্দ্র বন্ধ রাখতে হয়। বিশেষ করে ডিজেল চালিত বিদ্যুৎ কেন্দ্রগুলো বছরের বেশিরভাগ দিনই বন্ধ থাকে। আর নিরবচ্ছিন্ন সরবরাহ দেয়া সম্ভব হলে বিদ্যুতের চাহিদা আরো কিছুটা বাড়তে পারে। সেজন্য ইতিমধ্যে বিদ্যুৎ বিভাগ বিতরণ সংস’াগুলোতে নিরবচ্ছিন্ন সরবরাহ নিশ্চিত করতে প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ নেয়ার নির্দেশ দিয়েছে।
সূত্র জানায়, দেশের ১১ পলৱী বিদ্যুৎ সমিতির ৮ হাজার ৮৬৮ কিলোমিটার বিতরণ লাইন ভূগর্ভে নিয়ে যেতে চায় পলৱী বিদ্যুতায়ন বোর্ড (আরইবি)। প্রাথমিকভাবে ধারণা করা হচ্ছে এক কিলোমিটার ভূগর্ভস’ লাইন নির্মাণে প্রয়োজন হবে ৫ কোটি টাকা। ওই হিসেবে প্রতিষ্ঠানটির সব লাইন মাটির নিচে নিতে প্রয়োজন হবে প্রায় ৪৪ হাজার ৫০০ কোটি টাকা। নিরবচ্ছিন্ন বিদ্যুৎ সরবরাহ নিশ্চিত করতে এই প্রকল্প হাতে নেয়া হয়েছে। প্রথমদিকে ঢাকা, নারায়ণগঞ্জ, গাজীপুর, মানিকগঞ্জ, নরসিংদী জেলার পলৱী বিদ্যুৎ সমিতির লাইন ভূগর্ভে যাবে। যদিও ওভারহেড মাটির উপরিভাগে এক কিলোমিটার লাইন নির্মাণে ব্যয় হয় এক কোটি টাকার মতো। সেখানে এক কিলোমিটার ভূগর্ভস’ লাইন নির্মাণের ব্যয় পাঁচ গুণ। কিন’ নিরবচ্ছিন্ন বিদ্যুৎ সরবরাহ নিশ্চিত করতে হলে ভূগর্ভস’ লাইন নির্মাণের কোন বিকল্প নেই। কারণ ঝড় ঝঞ্ঝার মতো প্রাকৃতিক দুর্যোগে ভূগর্ভস’ লাইনের বিদ্যুৎ সরবরাহ বন্ধ করার প্রয়োজন পড়ে না। মাটির নিচে দিয়ে বিদ্যুৎ লাইন যাওয়াতে ওই ধরনের প্রাকৃতিক দুর্যোগে সরবরাহ লাইন বিনষ্ট হয় না। আর একবার বসালে দীর্ঘ সময় পর্যন্ত রক্ষণাবেক্ষণ খরচ থাকে না। ফলে শুর্বতে বিনিয়োগ কিছুটা বেশি হলেও ভূগর্ভস’ লাইন নির্মাণ দীর্ঘ মেয়াদে লাভজনক। আরইবির অধিকাংশ লাইন উপরিভাগ দিয়ে গেছে। গ্রামীণ এলাকায় গাছপালার মধ্য দিয়ে ওই ধরনের লাইন নির্মাণ করা হয়েছে। ফলে প্রায়ই লাইন ক্ষতিগ্রস্ত হয়। যা সংস্কার করে বিদ্যুৎ সরবরাহ করাতে গ্রাহক বিড়ম্বনায় পড়ে যায়।

শর্টলিংকঃ