ভিন্নভাবে উদযাপিত এবারের ঈদে সবাই নিরাপদ থাকুন

  • 44
    Shares

দীর্ঘ একমাস সিয়াম সাধনার পর এসেছে ঈদুল ফিতর। আজ শনিবার চাঁদ দেখা গেলে আগামীকাল রোববার উদযাপিত হবে পবিত্র ঈদুল ফিতর। নইলে ঈদ হবে পরদিন সোমবার। পশ্চিম আকাশে শাওয়ালের একফালি চাঁদ দেখা দেবার সাথে সাথে ঈদ আনন্দ ছড়িয়ে পড়বে সমাজের সর্বত্র। তবে এবারে করোনা পরিস্থিতির কারণে ভিন্নভাবে উদযাপিত হচ্ছে ঈদ।

এখন প্রতিদিনই বাড়ছে করোনা সংক্রমণ ও মৃত্যুর সংখ্যা। চলছে দীর্ঘ সাধারণ ছুটি, লকডাউন। স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলতে হচ্ছে সবাইকে। এ অবস্থায় মুসল্লিদের ঝুঁকি বিবেচনা করে পবিত্র ঈদুল ফিতরের জামাত ঈদগাহ বা খোলা জায়গার পরিবর্তে নিকটস্থ মসজিদে আদায়, মাস্ক পরিধান, কাতারে দাঁড়ানোর ক্ষেত্রে দূরত্ব বজায় রাখা, এক কাতার অন্তর দাঁড়ানো, কোলাকুলি ও হাত মেলানো পরিহার করতে হবে। এমনিতেই লকডাউনের কারণে রাস্তায় বেরুনো নিষেধ থাকায় আত্মীয়-স্বজনের বাড়িতে যাওয়া বা কোথায়ও বেড়ানো বন্ধ। ঈদের স্বাভাবিক কেনাকাটা বা আনন্দ উৎসবও হচ্ছে না। তাই করোনা মহামারি মোকাবিলা করতে ভিন্নভাবেই উদযাপিত হবে এবারের ঈদুল ফিতর। এ অবস্থায় ঈদের সময়ও ঘরে থাকাই হবে সবার জন্য নিরাপদ।

এবার বিশ্বজুড়েই মুসলিম জাহানের সবচেয়ে বড় ধর্মীয় ও সামাজিক এই উৎসব ভিন্নভাবে পালিত হচ্ছে। করোনার সংক্রমণ ও বিস্তার রোধ করে বিপদমুক্ত হওয়ার স্বার্থেই সব কিছুই পাল্টে গেছে। তাই ঈদ উৎসবের পরিবর্তে অসহায় মানুষের পাশে দাঁড়ানো এবং ঈদের আনন্দ ভাগাভাগি করে নেয়াই যুক্তিযুক্ত হবে সবার জন্য। এভাবেই ব্যক্তিগত সুখ-দুঃখের গণ্ডি পেরিয়ে এক প্রীতিময় পরিবেশ গভীর হবার; সামাজিক সৌহার্দ্য, সম্প্রীতি সুরক্ষায় উদ্বুদ্ধ হবার দিন আজ।

এই দিনে বিদুরিত হোক সব দুঃখ-কষ্ট, ব্যথা-বেদনা, হতাশা, নিরাশা, হিংসা-বিদ্বেষ, স্বার্থপরতা-সংকীর্ণতা, এটা সবারই প্রত্যাশা। করোনা ভয়াবহতার মধ্যেই ঈদের আনন্দ সবার জীবনে বয়ে আনুক অনাবিল সুখ আর শান্তির বারতা। করোনা যুদ্ধে জয়ী হবার শক্তি ও সাহসে ভর করে ঈদ সবার জীবনকে মধুময় করে তুলুক। স্বাস্থ্যবিধি মেনে সাবধানতা-সতর্কতার ফলে দিনটি সবার জন্য নিরাপদ ও মঙ্গলময় হয়ে উঠুক। সবাইকে ঈদ মোবারক!

সোনালী/এমই

শর্টলিংকঃ