‘ভালো কাজ করেছি বলে অনেকে টেনে ধরতে চাইছেন’

  • 3
    Shares

অনলাইন ডেস্ক: তৌসিফ মাহবুব। অভিনেতা ও মডেল। সবক’টি চ্যানেল মিলিয়ে এবারের ঈদে তার প্রায় ৪২টি নাটক প্রচার হবে। ঈদের নাটক ও অন্যান্য প্রসঙ্গে কথা হলো তার সঙ্গে-

আসছে ঈদে কতটি নাটক ও টেলিছবি প্রচার হওয়ার কথা রয়েছে?

নাটক ও টেলিছবি মিলিয়ে ৪২টির মতো কাজ ঈদে প্রচার হবে। এর মধ্যে রয়েছে- অনন্য ইমনের ‘ম্যারাডোনার ছেলে’, মিজানুর রহমান আরিয়ানের ‘চিরকাল’, মিফতা আনানের ‘বেহায়া’, মোহন আহমেদের ‘নাবিক’, ইউসুফ চৌধুরীর ‘হারানো দিনের গান’, অলক হাসানের ‘ফরেন বাবুর্চি’, পথিক সাধুর ‘রিকশাওয়ালা দুলাভাই’।

ঈদে হাস্যরস ও প্রেমের নাটকের আধিক্য থাকে। আপনার নাটকের বিষয়বস্তু তাই?

এটা সত্যি যে, ঈদে প্রেম ও হাসির নাটকই বেশি প্রচার হয়। তবে আমি বরাবরই সব ধরনের গল্পের নাটকে কাজে আগ্রহী। কাজের তালিকায় চোখ বুলালে তাই মনে হবে। আমার চাওয়া- দর্শকরা আমাকে সিরিয়াস, প্রেম-ভালোবাসার গল্পনির্ভর নাটকেও দেখুক। সেই ভাবনা থেকে ঈদ আয়োজনে সব ধরনের নাটকেই কাজ করেছি। ‘নাবিক’ নাটকে প্রথমবার জাহাজের ক্যাপ্টেনের চরিত্রে অভিনয় করেছি।

জাহাজে ও সাগরে টানা ছয়দিন এর শুটিং হয়েছে। বিজ্ঞাপনচিত্রে নাবিকের অনেক গল্প দেখেছি কিন্তু নাটকে এ রকম কাজ কম হয়েছে। ‘ফরেন বাবুর্চি’ নাটকে আমার চরিত্র একজন বাবুর্চির। ‘রিকশাওয়ালা দুলাভাই’ নাটকে রিকশাওয়ালার চরিত্র, ‘উইল ইউ মেরি মি’ নাটকে একেবারে ভিন্ন গেটআপে হাজির হয়েছি। ‘হারানো দিনের গান’ নাটকটির কথা না বললেই নয়। এক নাটকে ৪০টি গানের অংশবিশেষ গেয়েছি।। সব অডিও টেকে হয়েছে।

এত নাটকে একসঙ্গে কাজ করেছেন, দর্শক কি সঠিক আউটপুট পাবেন?

গত ভালোবাসা দিবস ও কোরবানির ঈদে আমার ২০টি নাটক যায়নি। স্পন্সরসহ নানা জটিলতায় এগুলো আটকে ছিল। সব কাজ জমে ৪২টির মতো কাজ হয়েছে। বিভিন্ন সময়ে এর শুটিং করেছি। আমি চেষ্টা করেছি নিজের সেরাটা দিতে। কতটুকু পেরেছি দর্শক তা ভালো বলতে পারবেন।

ধারাবাহিক নাটকে এখন তো আর কাজ করছেন না-

ঈদের নাটকে মনোযোগ দেওয়ার কারণে নাটকের কাজে মনোযোগ দিয়েছি। ‘ব্যাচেলর পয়েন্ট’র পর নতুন কোনো ধারাবাহিকের কাজ করিনি। ভালো গল্প-চরিত্র পেলে হয়তো ঈদের পর কাজ করব।

কাজের ক্ষেত্রে গল্প, নির্মাতা, চরিত্র- কোনটি আপনার কাছে প্রাধান্য পায়?

অবশ্যই গল্প। গল্প ভালো না হলে নাটক কিংবা টেলিছবিতে কাজই করি না। এরপর চরিত্র ও নির্মাতার কথা ভাবি।

ঈদে নিজের নাটকের বাইরে কার কার নাটক দেখার ইচ্ছা রয়েছে?

সময়-সুযোগ পেলে সবার নাটকই দেখার চেষ্টা করি। মিডিয়া একটি পরিবারের মতো। অনেক কষ্ট করে শিল্পীরা অভিনয় করেন। অন্যদের কাছ থেকেও অনেক শেখার আছে। এই ঈদে বিশেষ করে মোশাররফ করিম, তাহসান খান, মিথিলার নাটক দেখার অপেক্ষায় আছি।

প্রায়ই আপনি নানা বিতর্কের মুখে পড়েন। কী কারণে এমনটি হয়?

বিতর্ক আমার পিছু ছাড়ছে না। কপাল মন্দ, তাই এমনটি হচ্ছে। ভালো কাজ করেছি বলে আমাকে পেছন থেকে অনেকে টেনে ধরতে চাইছেন। একটু খেয়াল করে দেখবেন যখন কোনো বিতর্ক শুরু হয় আমি চুপ থাকি। বিতর্ক একসময় থেমে যায়। সবকিছু মিথ্যে প্রমাণিত হয়। আলোচনা থাকলে সমালোচনা থাকবে। তাই এটি মেনে নিয়েছি।

সোনালী/জেআর

শর্টলিংকঃ