বেতন বকেয়া রেখে লকডাউন ঘোষণায় শ্রমিকদের খনি অবরোধ

পার্বতীপুর (দিনাজপুর) প্রতিনিধি: পূর্ব ঘোষণা ছাড়াই দুইমাসের বেতন বকেয়া রেখে মধ্যপাড়া কঠিন শিলা খনি লকডাউনের নোটিশ ঝুলিয়ে দেয়ায় ৰুদ্ধ শ্রমিকরা ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠান জার্মানিয়া ট্রেস্ট কনসোর্টিয়ামের (জিটিসি) কর্মকর্তাদের ১৫ ঘন্টা অবরোধ করে রাখে। পরে খনি কর্তৃপৰ জিটিসি’র সাথে আলোচনা করে আগামী ৭ এপ্রিলের মধ্যে বকেয়াসহ চলতি মাসের বেতন পরিশোধ করার প্রতিশ্র্বতি দিলে গত বৃহস্পতিবার বেলা ১২টার দিকে শ্রমিকরা অবরোধ প্রত্যাহার করে নেয়।
জানা যায়, মধ্যপাড়া কঠিনশিলা খনির ঠিকারদারী প্রতিষ্ঠান জিটিসি’র অধিনে প্রায় ১ হাজার ১ শ বাংলাদেশি শ্রমিক খনি ভূ-গর্ভ ও উপরিভাগে কাজ করেন। এসব শ্রমিকের গত ফেব্র্বয়ারি মাসের বেতন পরিশোধ করা হয়নি। এছাড়াও চলতি মার্চ মাসের বেতন বকেয়া রয়েছে। এ অবস’ায় গত বুধবার রাত ৯টায় খনির উৎপাদনসহ সব বিভাগের কাজ বন্ধ ঘোষণা করে নোটিশ ঝুলিয়ে দেয় জিটিসি। এ ঘটনায় শ্রমিকদের মাঝে ৰোভের সৃষ্টি হয়। তারা দুই মাসের বেতন পরিশোধের দাবিতে খনি গেটে অবস’ান নেয়। এতে করে ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠান জিটিসি’র কর্মকর্তারা অবর্বদ্ধ হয়ে পড়েন।
জিটিসি’র ড্রিলিং এন্ড বৱাষ্টিং অপারেটর রফিকুল ইসলাম বেলা ১ টার দিকে জানান, একজন শ্রমিক মাসে ৮ হাজার থেকে ১০ হাজার টাকা বেতন পান। বর্তমান বাজারে এ টাকায় শ্রমিকদের ১৫ দিনও চলেনা। তার ওপর দুই মাসের বেতন না দিয়ে কোন পূর্ব ঘোষণা ছাড়াই জিটিসি খনি বন্ধের নোটিশ ঝুলিয়ে দেয়। শরিফ, শাহিনসহ আরও কয়েকজন শ্রমিক বলেন, ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠানের এ ধরনের অমানবিক সিদ্ধান্ত শ্রমিকরা কোনভাবে মেনে নিতে পারে না।
এ ব্যাপারে জানতে চাইলে মধ্যপাড়া গ্রানাইট মাইনিং কোম্পানী লিমিটেডের (এমজিএমসিএল) ব্যবস’াপনা পরিচালক এবিএম কামর্বজ্জামান জানান- শ্রমিকদের আশ্বস্ত করা হয়েছে জিটিসি আগামী ৭ এপ্রিলের মধ্যে তাদের পাওনা পরিশোধ করবে। করোনা ভাইরাসের কারণে সারাদেশে লক ডাউন শুর্ব হয়েছে। সরকার যে কোন রকমের জনসমাগম নিষিদ্ধ ঘোষণা করেছে। এ অবস’ায় ৭ এপ্রিল পর্যন্ত শ্রমিকদের অপেৰা করার জন্য আহবান জানানো হলে তারা অবরোধ প্রত্যাহার করে নেয়।

শর্টলিংকঃ