বীরশ্রেষ্ঠ ক্যাপ্টেন জাহাঙ্গীরের শাহাদাতবার্ষিকী আজ

চাঁপাইনবাবগঞ্জ ব্যুরো: আজ ১৪ ডিসেম্বর বীরশ্রেষ্ঠ শহীদ ক্যাপ্টেন মহিউদ্দীন জাহাঙ্গীর এর ৪৯তম শাহাদাতবার্ষিকী। দেশ শত্রুমুক্ত হবার ২দিন আগে ৭ নং সেক্টরের অধীন চাঁপাইনবাবগঞ্জের মহানন্দা নদীর পাদদেশ রেহাইচরে শত্রুদের শেষ বাঙ্কারে চার্জ করার সময় পাশের একটি জানালা থেকে রাজাকার বাহিনীর ছোড়া বুলেট জাহাঙ্গীরের কপালে বিদ্ধ হয়।

এতে ঘটনাস্থলেই শহীদ হন জাতির এই সূর্যসন্তান।

তাঁর শেষ ইচ্ছানুযায়ী সোনামসজিদ প্রাঙ্গনে ৭ নং সেক্টরের প্রথম সেক্টর কমান্ডার মেজর নাজমুল হক এর পাশে তাঁকে দাফন করা হয়। তার সম্মান ও স্মৃতি রক্ষার্থে শাহাদতস্থল রেহাইচরে স্মৃতিফলক, কলেজ ও মহানন্দা নদীর উপর প্রথম নির্মিত সেতুর নামকরণ করা হয়।

জেলা প্রশাসন সূত্রে জানা গেছে, তাঁর শাহাদাত বার্ষিকী উপলক্ষে চাঁপাইনবাবগঞ্জ জেলা মুক্তিযোদ্ধা সংসদ ও জেলা প্রশাসন রেহাইচরের সড়ক ভবন চত্বরে বীরশ্রেষ্ঠ জাহাঙ্গীরের শাহাদাতবরণ স্থলে নির্মিত স্মৃতিস্তম্ভে সকাল ৯টায় জাতীয় পতাকা উত্তোলন ও পুস্পস্তবক অর্পণ, সকাল ১০ টায় সোনামসজিদ প্রাঙ্গণে তাঁর ও মেজর নাজমুল হক এর সমাধিস্থলে শ্রদ্ধা নিবেদন এবং গণকবরে পুষ্পস্তবক অর্পণের পর দোয়া মাহফিল কর্মসূচী গ্রহণ করা হয়েছে।

এসব কর্মসূচীতে উপস্থিত থাকবেন জেলা প্রশাসক মোঃ মঞ্জুরুল হাফিজ, পুলিশ সুপার এ এইচ এম আবদুর রকিব ও বীর মুক্তিযোদ্ধাসহ বিভিন্ন শ্রেনী পেশার মানুষ। ৭১’সালে মহান মুক্তিযুদ্ধের প্রাক্কালে পাকিস্তানি সেনা ও সীমান্তরক্ষীদের দৃষ্টি এড়িয়ে জীবনের ঝুঁকি নিয়ে দুর্গম এলাকা অতিক্রম করে শিয়ালকোট সীমান্ত দিয়ে ভারতীয় এলাকায় প্রবেশ করেন। পরে পশ্চিমবঙ্গের মালদহ জেলার মহদিপুরে মুক্তিবাহিনীর ৭নং সেক্টরে সাব সেক্টর কমান্ডার হিসাবে ৩ জুলাই যোগ দেন। তিনি সেক্টর কমান্ডার মেজর নাজমুল হকের অধীনে যুদ্ধ এবং সাহসিকতার সাথে তিনি দায়িত্ব পালন করেন।

উল্লেখ্য, বীরশ্রেষ্ঠ ক্যাপ্টেন মহিউদ্দিন জাহাঙ্গীর বরিশাল জেলার বাবুগঞ্জ উপজেলার রহিমগঞ্জ গ্রামে ১৯৪৯ সালের ৭ মার্চ জন্মগ্রহণ করেন। তাঁর পিতার নাম মৌলভী আব্দুল মোতালেব হাওলাদার ও মাতা মোসাম্মত সাফিয়া বেগম।

সোনালী/আরআর

শর্টলিংকঃ