বিশ্ববিদ্যালয়ে স্বার্থে রাবি’র ছাত্র উপদেষ্টাকে অব্যাহতি

বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিবেদক: রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের (রাবি) ছাত্র উপদেষ্টার পদ থেকে অধ্যাপক লায়লা আরজুমান বানুকে অব্যাহতি দিয়েছে কর্তৃপৰ। গতকাল রোববার দুপুরে বিশ্ববিদ্যালয়ের ভারপ্রাপ্ত রেজিস্ট্রার অধ্যাপক এম এ বারী স্বাৰরিত এক আদেশে এ তথ্য জানানো হয়।
আদেশে বলা হয়, বিশ্ববিদ্যালয়ের স্বার্থে অধ্যাপক লায়লা আরজুমান বানুকে অব্যাহতি দেওয়া হয়েছে। উক্ত পদে নতুন করে নিয়োগ না দেয়া পর্যন্ত বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর অধ্যাপক লুৎফর রহমান ছাত্র উপদেষ্টার দায়িত্ব পালন করবেন।
অধ্যাপক লায়লা আরজুমান বানু জানান, রাবি স্কুলে এক শিৰার্থীর শৱীলতাহানির ঘটনায় গত ২০ ফেব্র্বয়ারি হাইকোর্টের সংশিৱষ্ট শাখায় জনস্বার্থে রিট করেন সুপ্রিম কোর্টের আইনজীবী জোবাইদা গুলশান আরা। যার প্রেৰিতে, রাবি স্কুলে ছাত্রীর শৱীলতাহনির অভিযোগ ওঠা শিক্ষকের বির্বদ্ধে কেন আইন অনুযায়ী ব্যবস’া নিতে বিবাদীদের ব্যর্থতাকে বেআইনি ঘোষণা করা হবে না, তা জানতে চেয়ে র্বল জারি করে হাইকোর্ট।
একই সঙ্গে স্বরাষ্ট্র সচিব, পুলিশের মহাপরিদর্শক, রাজশাহীর পুলিশ সুপার, রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য, উপ-উপাচার্য, রেজিস্ট্রার, বিশ্ববিদ্যালয়ের লিগ্যাল সেলের প্রশাসক, রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয় স্কুল অ্যান্ড কলেজের পরিচালনা পর্ষদের সভাপতি ও অধ্যক্ষ, রাজশাহীর মতিহার থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা এবং শিক্ষক দুর্বল হুদাকে র্বলের জবাব দিতে বলা হয়।
প্রসঙ্গত, ভুক্তভোগী শিৰার্থী ছাত্র উপদেষ্টা অধ্যাপক লায়লা আরজুমান বানুর মেয়ে।
অধ্যাপক লায়লা আরজুমান বানু বলেন, র্বল জারির পর উপাচার্য স্যার আমাকে বলেছেন আমি নাকি বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসনের বির্বদ্ধে কাজ করছি। তিনি আমাকে ব্যক্তিগত কারণ দেখিয়ে পদত্যাগ করতে বলেছিল। কিন’ আমি রাজি হইনি। তাই আমাকে অব্যাহতি দেওয়া হয়েছে।
অধ্যাপক আরজুমান অভিযোগ করেন, উপাচার্য একজন অপরাধীকে বাঁচানোর জন্য আমাকে অব্যাহতি দিয়েছেন।
এ বিষয়ে মন্তব্য জানতে বিশ্ববিদ্যালয়ের ভারপ্রাপ্ত রেজিস্ট্রার অধ্যাপক এম এ বারীকে ফোন করা হলে রেজিস্ট্রার দফতরে সহকারী রেজিস্ট্রার তরিকুল আলম ফোন রিসিভ করেন । তিনি বলেন, রেজিস্ট্রার স্যার মিটিংয়ে আছেন।

শর্টলিংকঃ