বিদ্যুৎ ও পানির মূল্যবৃদ্ধির সিদ্ধান্ত প্রত্যাহার দাবি ওয়ার্কার্স পার্টির

সোনালী ডেস্ক: বাংলাদেশের ওয়ার্কার্স পার্টির সভাপতি ও সংসদ সদস্য রাশেদ খান মেনন এবং দলটির সাধারণ সম্পাদক ও সংসদ সদস্য ফজলে হোসেন বাদশা বিদ্যুতের মূল্যবৃদ্ধির ঘোষণাকে যুক্তিহীন ও একপেশে বলে অভিহিত করে তা প্রত্যাহারের দাবি জানিয়েছেন। গতকাল শুক্রবার গণমাধ্যমে পাঠানো দলের কেন্দ্রীয় নেতা কামরুল আহসান স্বাক্ষরিত এক বিবৃতিতে তারা এ দাবি জানান।
বিবৃতিতে দুই নেতা বলেন, বিদ্যুৎ নিয়ন্ত্রক সংস্থা বাংলাদেশ এনার্জি রেগুলেটরি কমিশনের (বিআরসি) গণশুনানিতে ভোক্তাদের পক্ষ থেকে দাম কমানোর পক্ষে যুক্তিসঙ্গতভাবে তথ্য-উপাত্ত উপস্থাপন করা হয়েছিল। সে সময় ওইসব যুক্তি কোনোভাবেই খÐন করতে পারেনি বিআরসি কর্তৃপক্ষ। কিন্তু ভোক্তাদের সব যুক্তিকে অগ্রাহ্য করে গ্রাহক পর্যায়ে ৫.৩ শতাংশ দাম বাড়ানো হয়েছে।
বিবৃতিতে বলা হয়, বিদ্যুতের দাম বাড়ানোর প্রভাব পড়বে সাধারণ ভোক্তাদের ওপর। এতে যেমন আর্থিক চাপ তৈরি হবে, তেমনি উৎপাদিত পণ্যমূল্যও বেড়ে যাবে। বিশেষ করে দৈনন্দিন জীবনযাত্রার ব্যয় ও নিত্যপ্রয়োজনীয় জিনিসপত্রের দামে প্রভাব পড়বে। যা সামগ্রিক অর্থনীতিতে বিরূপ প্রতিক্রিয়ার সৃষ্টি করে জনজীবনের সংকট বাড়াবে। ওয়ার্কার্স পার্টির সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক ঢাকায় ওয়াসার ২৪.৯৭ শতাংশ ও চট্টগ্রামে ২৫ শতাংশ পানির মূল্য বৃদ্ধিরও তীব্র প্রতিবাদ জানিয়েছেন।
নেতারা বলেন, বিদ্যুৎ ও পানির দাম বাড়ানোর ফলে শিল্প উৎপাদন, বিশেষ করে পোশাক খাত ভয়াবহ ক্ষতির মুখে পড়বে। কলকারখানা বন্ধ হয়ে যাবে। বাধাগ্রস্ত হবে অর্থনৈতিক প্রবৃদ্ধি। তারা অবিলম্বে এ সিদ্ধান্ত প্রত্যাহারের দাবি জানিয়েছেন।

শর্টলিংকঃ