বাঘায় প্রেমিকের বন্ধুর ধর্ষণের শিকার কলেজছাত্রী

বাঘা প্রতিনিধি: রাজশাহীর বাঘায় প্রতারণার ফাঁদে পড়ে ধর্ষণের শিকার হয়েছে রাজশাহীর এক কলেজছাত্রী। সোমবার রাতে গ্রামবাসীদের পক্ষ থেকে ৯৯৯ এ ফোন করলে ধর্ষক শাকিব হাসানের বাড়ি থেকে ওই ছাত্রীকে উদ্ধার করে পুলিশ। এ ঘটায় ভুক্তভোগী ছাত্রী নিজে বাদী হয়ে বাঘা থানায় একটি মামলা করেছেন।

অভিযোগে জানা গেছে, পাশ্ববর্তী চারঘাট উপজেলার এক কলেজছাত্রী রাজশাহী সরকারি কলেজে পড়ালেখা অবস্থায় বাঘা উপজেলার চকনারায়পুর গ্রামের ভ্যাগল সরকারের ছেলে রাব্বী হাসানের (২৬) সাথে পরিচয় হয়। এই পরিচয়ের সূত্র ধরে তাদের মধ্যে প্রেম ভালোবাসা গড়ে উঠে।

প্রায় দেড় বছর সম্পর্ক রাখার পর রাব্বী ওই ছাত্রীর সাথে সম্পর্ক নষ্ট করার চক্রান্তে গত দুইমাস পুর্বে তার বন্ধু শাকিব হাসানের (২৪) সাথে ওই ছাত্রীকে পরিচয় করে দেয় এবং তার মোবাইল নম্বর বদলে ফেলে।

শাকিব মনিগ্রাম ইউনিয়ন এলাকার তুলশিপুর গ্রামের আমিরুল ইসলামের ছেলে ও মনিগ্রাম বাজারে অবস্থিত গ্রামীন কৃষি উন্নয়ন কর্মসূচীর পরিচালক বলে জানা গেছে।

অভিযোগে উল্লেখ করা হয়েছে, রাব্বীর মোবাইল নম্বর পরিবর্তন হওয়ার পর তার বন্ধু শাকিব হাসান ওই কলেজছাত্রীর সাথে তার বন্ধুকে যোগাযোগ (পাইয়ে দেয়ার) শর্তে প্রায় মোবাইল করে কথা বলতে থাকে। এক পর্যায় ওই ছাত্রীকে আজ থেকে একমাস পুর্বে তার বন্ধুর বাসায় ডেকে এনে শাকিব নিজে বিয়ে করার প্রতিশ্রুতি দিয়ে তাকে ধর্ষণ করে এবং সেটি ভিডিও ধারণ করে তার বন্ধু।

অত:পর ওই ছাত্রীকে বলা হয়, তুমি যদি ঘটনাটি কাউকে জানাও তাহলে ফেসবুক-ইন্টারনেটে এই ভিডিও ভাইরাল করা হবে। এতে দুর্বল হয়ে পড়ে ওই ছাত্রী।

সর্বশেষ গত ২২ নভেম্বর সকালে ওই কলেজছাত্রীকে তার অফিসে ডেকে আনে শাকিব। অত:পর খুব শীগ্রই বিয়ে করার ওয়াদা করে আবারও তাকে ধর্ষণ করে। এরপর বিকেলে ওই ছাত্রী বাড়ি ফেরার সময় নাম প্রকাশ না করার সর্তে শাকিবের এক বন্ধু তাকে জানায় শাকিব বিবাহিত। সে তোমার সাথে প্রতারণা করছে। এ খবর শুনে ওই ছাত্রী দিশেহারা হয়ে পড়ে এবং শাকিবের বাড়িতে গিয়ে চিৎকার করে স্থানীয় লোকজন জড়ো করে।

তখন মুহুর্তের মধ্যে ঘটনাটি জানাজানি হয়ে যাই এবং স্থানীয় লোকজন জাতীয় জরুরী সেবা ৯৯৯ এ ফোন করে পুলিশকে ঘটনাটি অবগত করে। এর কিছুক্ষণ পর বাঘা থানা পুলিশ ওই কলেজছাত্রীকে সেখান থেকে উদ্ধার করে থানা হেফাজতে নিয়ে আসে এবং সকালে ধর্ষণ মামলা লিপিবদ্ধ করা।

স্থানীয় লোকজন জানান, রাব্বী এবং শাকিব তারা ঘনিষ্ট বন্ধু। এর মধ্যে রাব্বীর নামে বাঘা থানায় মাদক সেবন, ছিনতাই এবং চাঁদাবাজির মামলা রয়েছে। তার অত্যাচারে অতিষ্ঠ এলাকাবাসী।

বাঘা থানা অফিসার ইনচার্জ (ওসি) নজরুল ইসলাম জানান, কলেজছাত্রী নিজে বাদি হয়ে একটি ধর্ষণ মামলা দায়ের করেছে। তাকে পরীক্ষা-নিরীক্ষার জন্য মঙ্গলবার দুপুরে রামেক হাসপাতালের ওসিসিতে পাঠানো হয়েছে। এ বিষয়ে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেয়া হবে।

 

সোনালী/এমই

শর্টলিংকঃ