বাগমারায় লীজকৃত দীঘিতে মাছ ধরা ও নিরাপত্তার দাবিতে মানববন্ধন

  • 17
    Shares


স্টাফ রিপোর্টার: রাজশাহীর বাগমারা উপজেলায় মকসেদ আলী প্রামাণিক নামে এক ব্যক্তির লীজ নেয়া দীঘিতে মাছ ধরা ও তার নিরাপত্তার দাবিতে মানববন্ধন হয়েছে। সোমবার বেলা ১১টার দিকে উপজেলার বিন্দুরি দীঘি সংলগ্ন কনোপাড়া এলাকায় এ মানববন্ধন হয়। মৎসচাষী মকসেদ আলীর বাড়ি এ গ্রামেই।

মানববন্ধন থেকে জানানো হয়- বাগমারা উপজেলার কনোপাড়া এক নম্বর ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সভাপতি মকসেদ আলী প্রামাণিক। স্থানীয় একটি প্রভাবশালী মহলের ষড়যন্ত্রের শিকার হয়ে চরম নিরাপত্তাহীনতায় ভুগছেন মকলেস আলী। তার লীজ নেওয়া দীঘিতে প্রায় কোটি টাকা বিনিয়োগ করেও মাছ উঠিয়ে বিক্রি করতে পারছেন না। এতে করে তিনি আর্থিক ক্ষতির মুখে পড়েছেন।

ভুক্তভোগী মকসেদ আলী সাংবাদিকদের জানান, দীঘিটি আমি তিন বছরের জন্য লীজ নিয়েছি। কিন্তু স্থানীয় প্রভাবশালী মহলের ষড়যন্ত্রের কারণে দীঘি থেকে মাছ উঠাতে পারছি না। সুনির্দিষ্ট কোনো কারণ ছাড়াই মহলটি ষড়যন্ত্রমূলকভাবে স্থানীয় প্রশাসনের মাধ্যমে দীঘির ওপর স্থগিতাদেশ জারি করিয়েছে। গত বৃহস্পতিবার থেকে কনোপাড়া এলাকার দীঘির ওপর নিষেধাজ্ঞা জারি করেছে প্রশাসন। বিষয়টি ভালোভাবে তদন্ত করে ব্যবস্থা নিতে প্রশাসনের কাছে অনুরোধ জানান। এছাড়া নিজের নিরাপত্তাও দাবি করেন তিনি।

তিনি বলেন, স্থানীয় আব্দুল মান্নান নামের এক ব্যক্তির প্রত্যক্ষ ও পরোক্ষ ইন্ধনে এই সমস্যা জিইয়ে রয়েছে। তার পেশি শক্তির কাছে এলাকাবাসী অসহায়। তিনি বলেন, আব্দুল মান্নানের বিরুদ্ধে নিষিদ্ধ ঘোষিত জঙ্গি সংগঠন জেএমবির সাথে সংশ্লিষ্টতার অভিযোগ রয়েছে। তার বিরুদ্ধে থানায় বর্তমানে ১৩টি মামলা চলমান রয়েছে। কিন্তু পুলিশ-প্রশাসন তার পক্ষেই অবস্থান নিয়েছে। তিনি এবং গ্রামবাসী কোন সহায়তা পাচ্ছেন না।

এ ব্যাপারে অভিযুক্ত আব্দুল মান্নানের বক্তব্য পাওয়া যায়নি। কয়েকবার ফোন করা হলেও তিনি ধরেননি। বাগমারা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আতাউর রহমান বলেন, দীঘিকে কেন্দ্র করে প্রায় ২০টি মামলা রয়েছে। অনাকাঙ্খিত ঘটনা এড়াতে ১৪৪ ধারা জারি করা হয়েছে।

সোনালী/আরআর

শর্টলিংকঃ