বর বদল অতঃপর গৃহবন্দি!


ভোলাহাট (চাঁপাইনবাবগঞ্জ) প্রতিনিধি: ভোলাহাটে ভাইয়ের বদলে ভাই বিয়ে করতে এসে গৃহবন্দি হওয়ার ঘটনা ঘটেছে। ঘটনাটি ঘটেছে ভোলাহাট উপজেলার পোল্লাডাঙার জিন্নাহনগর গ্রামে।

শনিবার বর বদল করে বড়ভাই উপজেলার তাঁতীপাড়া গ্রামের আকরাম আলীর ছেলে সোহাগ বাবুর (২৯) পরিবর্তে ছোট ভাই সুজন (২৭) বিয়ে করতে আসলে কনে বাড়ির লোকজন ঘরের মধ্যে বর ও তার লোকজনকে বিয়েতে প্রতারণা করার দায়ে ঘরে বন্দি করে রাখে।

স্থানীয়রা জানান, ছোটভাই সুজন নেশাগ্রস্ত হওয়ায় কোথাও বিয়ে না হওয়ায় বড় ভাই সোহাগ বাবুকে কনে পক্ষকে দেখিয়ে বিয়ের দিন ঠিক হয়। পরে বড় ভাই বিয়ে করতে না এসে নেশাগ্রস্থ ছোট ভাই সুজনকে বিয়ের জন্য পাঠায়।

বিয়েবাড়িতে এসে বর বদল দেখে কনে পক্ষ ক্ষীপ্ত হয়। পরে তাকে ও তার সাথের কোলবরকে ঘর বন্দি করে উপজেলা চেয়ারম্যান ও ভাইস চেয়ারম্যানকে কনে পক্ষ খবর দেয়।

ফলে উপজেলা চেয়ারম্যান রাব্বুল হোসেন ও ভাইস চেয়ারম্যান গরিবুল্লাহ দবির, সংশ্লিষ্ট ইউপি প্যানেল চেয়ারম্যান আব্দুল বারী বর পক্ষের মেম্বার আহসান হাবিব, আওয়ামীলীগ নেতা আরজেদ আলী ভুটুসহ অনেকেই ঘটনা স্থলে উপস্থিত হন।

এ সময় বিয়ে প্রতারণার দায়ে উপস্থিত ব্যক্তিগণ বিয়ের খরচ ৩০ হাজার টাকা ও জরিমানা ৩০ হাজার সর্বমোট ৬০ হাজার টাকা ভূয়া বরকে দণ্ড দেয়া হয়। ভবিষ্যতে এ ধরণের আর ঘটনা না ঘটে তার জন্য হাত জোড় করে মাফ চেয়েছে এবং বিয়ে বন্ধ করা হয়। এ ঘটনায় এলাকায় ব্যাপক চাঞ্চল্যকর পরিস্থিতির সৃষ্টি হয়।

এ ব্যাপারে উপস্থিত দলদলী ইউপির প্যানেল চেয়ারম্যান আব্দুল বারী ঘটনার সত্যতা স্বীকার করেন এবং ক্ষতিপূরণ ও জরিমানার ৬০ হাজার টাকা ভূয়া বরকে জরিমানা করা হয়েছে বলে নিশ্চিত করেন।

সোনালী/এমই

শর্টলিংকঃ