বঙ্গবন্ধু হাইটেক সিটিতে উৎপাদন হবে ক্যান্সার ও এইডসের ওষুধ

অনলাইন ডেস্ক: করোনাকালে প্রায় আড়াই হাজার কোটি টাকা সমমূল্যের বিদেশি বিনিয়োগ পেল বঙ্গবন্ধু হাইটেক সিটি। মানুষের প্লাজমা থেকে ক্যান্সার ও এইডসের ওষুধ উৎপাদনে এই অর্থ বিনিয়োগ করবে অরিক্স বায়োটেক নামের একটি প্রতিষ্ঠান। প্রকল্পটি বাস্তবায়ন হলে দুই হাজার মানুষের কর্মসংস্থান তৈরি হবে বলে জানিয়েছেন, তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি প্রতিমন্ত্রী।

মহামারি করোনায় স্থবির দেশের শিল্পখাতের বিনিয়োগ। দিন দিন কমছে কর্মসংস্থান। এমন পরিস্থিতিতে বড় ধরনের বিদেশি বিনিয়োগ পেল কালিয়াকৈরের বঙ্গবন্ধু হাইটেক সিটি।

মঙ্গলবার (১১ আগস্ট) রাজধানীর আগারগাঁওয়ে আইসিটি দপ্তরে আয়োজিত অনুষ্ঠানে জানানো হয়, তিনশ’ মিলিয়ন ডলার বিনিয়োগ করবে অরিক্স বায়োটেক নামের একটি প্রতিষ্ঠান। প্রতিষ্ঠানটি জানিয়েছে, হাইটেক সিটিতে মানুষের দেহ থেকে বছরে ১২০০ টন প্লাজমা বিশ্লেষণে সক্ষম প্ল্যান্ট নির্মাণ করা হবে।

সামিট গ্রুপের চেয়ারম্যান মুহাম্মদ আজিজ খান বলেন, বঙ্গবন্ধু হাইটেকসিটিতে আমরা বছরে ১২০০ টন প্লাজমা বিশ্লেষণে সক্ষম প্ল্যান্ট নির্মাণ করবো। যার সাথে ২০টি প্লাজমা সংগ্রহ স্টেশন সংযুক্ত থাকবে। ক্যান্সার, এইডস, সার্স, ইনফ্লুয়েঞ্জা ও মুখের বিভিন্ন ভাইরাস ও ব্যকটেরিয়াজনিত রোগের বায়োটেক ওষুধ তৈরি হবে।

তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি প্রতিমন্ত্রী জানান, অরিক্স বায়োটেককে ব্লক-২ এ ২৫ একর জমি বরাদ্দ দেওয়া হয়েছে।

তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি প্রতিমন্ত্রী জুনায়েদ আহমেদ পলক বলেন, অরিক্স যে ৩০০ মিলিয়ন ডলার বিনিয়োগ করবে, সেখানে ২০০০ কর্মসংস্থান হবে।

বর্তমানে ‘বঙ্গবন্ধু হাই-টেক সিটি’-তে ৩৭টি কোম্পানিকে জায়গা বরাদ্দ দেয়া হয়েছে। এরই মধ্যে সেখানে ৫টি কোম্পানি উৎপাদন শুরু করেছে। কর্মসংস্থান হয়েছে ১৩ হাজার মানুষের।

সোনালী/আরআর

শর্টলিংকঃ