বগুড়ায় বিএনপি অফিসে দলীয় কর্মকাণ্ড প্রতিহতের ঘোষণা যুবদল নেতার!

অনলাইন ডেস্ক:

বগুড়া জেলা বিএনপি অফিসে দলীয় কর্মকাণ্ড প্রতিহত করার ঘোষণা দিয়েছেন সদ্য বহিষ্কৃত নেতা পৌর কাউন্সিলর সিপার আল বখতিয়ার। এই ঘোষণা দেওয়ার পর যুবদল বৃহস্পতিবার (১ অক্টোবর) কর্মসূচি দিয়েও দলীয় কার্যালয়ে প্রবেশ করেনি।

এদিকে দলীয় কার্যালয়ের সামনে থেকে পুলিশ প্রত্যাহার করে নেওয়া হয়েছে। বৃহস্পতিবার (১ অক্টোবর) বগুড়া শহরের নবাববাড়ি সড়কে জেলা বিএনপি কার্যালয়ে তালা ঝুলতে দেখা গেছে।

এদিকে আজ সকালে বহিষ্কৃত বিএনপি নেতা সিপার আল বখতিয়ারের শতাধিক কর্মী সমর্থক মোটরসাইকেল যোগে জেলা বিএনপি অফিসের সামনে ছাড়াও শহরের বিভিন্ন এলাকায় মহড়া দেয়। বিকেল পর্যন্ত কোনো পক্ষই জেলা বিএনপির কার্যালয়ে প্রবেশ করে নি।

বহিষ্কৃত বিএনপি নেতা সিপার আল বখতিয়ার জানান, জেলা বিএনপির আহ্বায়ক কমিটি গঠনের পর গত দেড় বছরে ২৩ জন নেতাকে বহিষ্কার করা হয়েছে। যারা প্রত্যেকেই সরকার বিরোধী আন্দোলন করতে গিয়ে অসংখ্য মামলার আসামি হয়েছে।

আহ্বায়ক কমিটি নেতাদের মূল্যায়ন না করে ষড়যন্ত্রে করে কেন্দ্রীয় নেতাদের ভুল বুঝিয়ে একের পর এক বহিষ্কার করছে। বহিষ্কৃত নেতাদের দলে না ফেরানো পর্যন্ত দলীয় কার্যালয়ে আহ্বায়ক কমিটির ও তাদের অনুসারীর কাউকে প্রবেশ করতে দেওয়া হবে না।

এদিকে যুবদলের বৃহস্পতিবারের কর্মসূচি বাতিল করার বিষয়ে জানতে জেলা যুবদলের যুগ্ম আহ্বায়ক জাহাঙ্গীর আলমকে ফোন করা হলে তিনি রিসিভ করেন নি।

উল্লেখ্য, জেলা যুবদলের সাবেক সভাপতি ও জেলা বিএনপির সাবেক প্রচার সম্পাদক সিপার আল বখতিয়ারকে গত ২৮ সেপ্টেম্বর দলের প্রাথমিক সদস্য পদ থেকে বহিষ্কার করা হয়।

২৯ সেপ্টেম্বর এ খবর জানাজানি হলে তার কর্মী সমর্থকরা ক্ষুব্ধ হয়ে উঠতে উত্তপ্ত হয়ে ওঠে বিএনপির রাজনৈতিক অঙ্গন। ওই দিন থেকে দলীয় কার্যালয়ে কোনো পক্ষই ঢুকতে পারছে না।

বগুড়া সদর পুলিশ ফাঁড়ির ইনচার্জ পুলিশ পরিদর্শক আবুল কালাম আজাদ বলেন, পুলিশ দুই পক্ষকেই ওয়াচ করছে। তিনি বলেন, যুবদল দলীয় কার্যালয়ে কর্মসূচি দিয়ে না আসায় অফিসের সামনে পুলিশ মোতায়েন করা হয়নি। -বার্তা২৪.কম

সোনালী সংবাদ/এইচ.এ

শর্টলিংকঃ