বগুড়ায় ঘুষ লেনদেনের সময় দুদকের ফাঁদে কর কমিশনার

বগুড়া প্রতিনিধি: বগুড়ায় ঘুষ লেনদেনের সময় দুর্নীতি দমন কমিশনের (দুদক) অভিযানে হাতে নাতে ধরা পড়েছেন সহকারী কর কমিশনার। কর কমিশনার অভিজিৎ কুমার দে সার্কেল-১৫ কর অঞ্চলে কর্মরত ছিলেন। গতকাল মঙ্গলবার দুপুরে দুদক বগুড়া সমন্বিত জেলা কার্যালয়ের একটি দল তাকে গ্রেপ্তার করে।
জানা গেছে, জেলার নন্দীগ্রাম উপজেলার ব্যবসায়ী ইউনুছ আলী কয়েক বছর আগে বেশ কিছু জমি বিক্রি করেন। এবছর তার আয়কর ফাইলে জমি বিক্রির বিষয়টি তিনি দেখাতে চান। এজন্য তিনি কর অফিসে যোগাযোগ করে কর কমিশনার অভিজিৎ কুমার দেকে ফাইল দেখাতে নিয়ে গেলে তিনি গত ছয় মাস ধরে তার ফাইলটি আটকে রাখেন। একপর্যায়ে সহকারী কর কমিশনার অভিজিৎ কুমার দে ইউনুছ আলীর কাছে ৫০ হাজার টাকা ঘুষ দাবি করেন।
পরে বিষয়টি ইউনুছ আলী দুদকের কাছে অভিযোগ করেন। সুনির্দিষ্ট অভিযোগের ভিত্তিতে দুর্নীতি দমন কমিশনের (দুদক) বগুড়া জেলা সমন্বিত কার্যালয়ের উপ-পরিচালক মুহা: মনিরুজ্জামানের তত্ত¡াবধানে একটি দল অভিযান শুরু করেন। এজন্য তারা পরিকল্পিতভাবে কর অফিসে (সার্কেল-১৫) ফাঁদ পাতেন।
এতে ভুক্তভোগী ইউনুছ আলী সহকারী কর কমিশনারের কক্ষে প্রবেশ করেন এবং কর কমিশনার অভিজিৎ কুমার দেকে বলেন, তিনি ঘুষের ৫০ হাজার টাকা এনেছেন। এসময় তিনি তাকে ৫০ হাজার টাকা প্রদান করেন। এসময় দুদকের দলটি তার কক্ষে প্রবেশ করে অভিজিৎ কুমার দে’র টেবিলের ড্রয়ার থেকে ঘুষের ৫০ হাজার টাকা উদ্ধার করেন। পরে দুদকের দল সহকারী কর কমিশনার অভিজিৎ কুমার দে’কে গ্রেপ্তার করেন।
এবিষয়ে দুদক বগুড়া অঞ্চলের সমন্বিত জেলা কার্যালয়ের একটি দায়িত্বশীল বিষয়টি নিশ্চিত করে বলেন, গ্রেপ্তারকৃত অভিজিৎ কুমারের টেবিলের ড্রয়ার থেকে ঘুষের ৫০ হাজার টাকা উদ্ধারের পর তিনি দুদককে সন্তোষজনক জবাব দিতে পারেননি। যে কারণে তাকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। তার বিরুদ্ধে দুদক আইনে মামলা দায়েরের বিষয়টি প্রক্রিয়াধিন।

শর্টলিংকঃ