প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে কৃতজ্ঞতা জ্ঞাপন ও মেয়র লিটনকে সংবর্ধনা

স্টাফ রিপোর্টার: রাজশাহী মহানগরীর অবকাঠামো উন্নয়নে ২ হাজার ৯৩১ কোটি ৬২ কোটি টাকার প্রকল্প একনেক সভায় অনুমোদিত হওয়ায় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে কৃতজ্ঞতা ও ধন্যবাদ জ্ঞাপন এবং সিটি করপোরেশনের মেয়র এ এইচ এম খায়রুজ্জামান লিটনকে সংবর্ধনা প্রদান করা হয়েছে। গতকাল বৃহস্পতিবার বিকালে নগরীর সাহেববাজার জিরোপয়েন্টে এ অনুষ্ঠানের আয়োজন করে রাজশাহী মহানগর আওয়ামী লীগ। অনুষ্ঠানে মেয়র খায়রুজ্জামান লিটন বলেন, এ বছর সারা বাংলাদেশসহ বিশে^র মানুষ মুজিববর্ষ পালন করবে। ঠিক সেই সময়ে রাজশাহীবাসীকে প্রধানমন্ত্রী মুজিববর্ষের সেরা উপহার দিলেন। এর চেয়ে সেরা উপহার আর কী হতে পারে? তিনি বলেন, একনেক সভায় যখন রাজশাহীর প্রকল্প উপস্থাপন করা হলো প্রধানমন্ত্রী সব দেখছিলেন কী কী আছে প্রকল্পে।
অনুষ্ঠান মঞ্চে উপস্থিত ছিলেন মেয়রপতœী মহানগর আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি সমাজসেবী শাহীন আকতার রেনী, সহ-সভাপতি মুক্তিযোদ্ধা মীর ইকবাল, মুক্তিযোদ্ধা নওশের আলী, মাহফুজুল আলম লোটন, অধ্যক্ষ শফিকুর রহমান বাদশা, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মোস্তাক হোসেন, নাঈমুল হুদা রানা, রেজাউল ইসলাম বাবুল, সাংগঠনিক সম্পাদক আসলাম সরকার, আসাদুজ্জামান আজাদ, উপ-প্রচার সম্পাদক মীর ইশতিয়াক আহমেদ লিমনসহ মহানগর নেতৃবৃন্দ এবং ছাত্রলীগের সাবেক সহ-সভাপতি ডা. আনিকা ফারিহা জামান অর্ণা। অনুষ্ঠান সঞ্চালনা করেন মহানগর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ডাবলু সরকার।
অনুষ্ঠানের শুরুতে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান ও তার পরিবারের শহিদ সদস্যবৃন্দ, জাতীয় চার নেতাসহ মহান মুক্তিযুদ্ধ এবং ভাষা আন্দোলনে শহিদদের স্মরণে এক মিনিট নীরবতা পালন করা হয়। এরপর মেয়র খায়রুজ্জামান লিটনকে ফুলেল শুভেচ্ছা জানান মহানগর আওয়ামী লীগের নেতৃবৃন্দ। এরপর মেয়রকে ফুলেল শুভেচ্ছা জানান সিটি করপোরেশনের প্যানেল মেয়র-১ সরিফুল ইসলাম বাবুর নেতৃত্বে রাজশাহী সিটি কর্পোরেশন, মহানগর, থানা ও ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের নেতৃবৃন্দ, মহানগর যুবলীগ, মহানগর ও জেলা স্বেচ্ছাসেবকলীগ, বাংলাদেশ মুক্তিযোদ্ধা সংসদ জেলা ও মহানগর কমান্ড, মহানগর বঙ্গবন্ধু পরিষদ, মহানগর, রাবি, রুয়েটসহ বিভিন্ন শাখা ছাত্রলীগ, মহানগর মহিলা আওয়ামী লীগ, মহানগর যুব মহিলা লীগ, মহানগর শ্রমিক লীগ, মহানগর সৈনিক লীগ, মহানগর তাঁতী লীগ, রেলওয়ে শ্রমিক লীগ, বাংলাদেশ কলেজ শিক্ষক সমিতি, বাংলাদেশ কারিগরি শিক্ষক সমিতি, সম্মিলিত আইনজীবী পরিষদ, বঙ্গবন্ধু আওয়ামী আইনজীবী পরিষদ, পূজা উদযাপন পরিষদ, হিন্দু, বৌদ্ধ, খ্রিস্টান ঐক্য পরিষদ, আরডিএ শ্রমিকলীগ, রাজশাহী পরিবহন মালিক গ্রæপ, মোটর শ্রমিক ইউনিয়ন, টাউন ফেডারেশন, রেশম বোর্ড এমúøয়েজ লীগ, বরেন্দ্র কর্মচারী ইউনিয়ন, জাতীয় রিক্সা-ভ্যান শ্রমিক লীগ, শালবাগান বাজার সমিতিসহ বিভিন্ন সামাজিক, স্বেচ্ছাসেবী, পেশাজীবী সংগঠন।
উল্লেখ্য, গত ১৮ ফেব্রæয়ারি একনেক সভায় প্রকল্পটি অনুমোদন দেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। এই প্রকল্পের মাধ্যমে পুরো রাজশাহীর চিত্রই বদলে যাবে, মহানগরীর আরও উন্নত, আধুনিক, বাসযোগ্য, তিলোত্তমা মহানগরীতে পরিণত হবে বলে আশা করা হচ্ছে।

শর্টলিংকঃ