প্রকৃতি ও পরিবেশ রক্ষায় একটা বড় আন্দোলন দরকার: বাদশা


স্টাফ রিপোর্টার: বাংলাদেশের ওয়ার্কার্স পার্টির সাধারণ সম্পাদক ফজলে হোসেন বাদশা বলেছেন, বাংলাদেশের প্রকৃতি ও পরিবেশ এখন হুমকির মুখে। প্রকৃতি ও পরিবেশ রক্ষায় একটা আন্দোলন বড় আন্দোলন দরকার। এ দেশে পরিবেশের ভারসাম্য রক্ষা করতে হলে এ ব্যাপারে আর বিলম্ব করা যাবে না।

মঙ্গলবার দুপুরে পার্টির রংপুর বিভাগীয় প্রতিনিধি সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এ কথা বলেন। ‘তিস্তা বাঁচাও-নদী বাঁচাও সংগ্রাম পরিষদ’ ঘোষিত আগামী ১ নভেম্বর ২৩০ কিলোমিটার দীর্ঘ মানববন্ধন সফল করার লক্ষ্যে রংপুর শহরের একটি কমিউনিটি সেন্টারে এই সভার আয়োজন করা হয়।

সভায় রাজশাহী-২ (সদর) আসনের সংসদ সদস্য ফজলে হোসেন বাদশা বলেন, এখনও পর্যন্ত পানি উন্নয়ন বোর্ড বাংলাদেশের নদীর সংখ্যা নিশ্চিত করে বলতে পারে না। কেউ কেউ বলে দেশে নদীর সংখ্যা ১৪০টি, কেউ বলে ১৭০টি। কিন্তু ৫৪টি নদী ভারত থেকে এসে দেশে শতাধিক শাখা-প্রশাখা ছড়িয়ে শতাধিক নদীতে পরিণত হয়েছে সেটা আমরা সবাই জানি। আন্তর্জাতিক আইনে বলা আছে, নদীর বিষয়ে কোন সিদ্ধান্ত নিতে হলে ভাটির দেশের মতামত নিতে হবে। কিন্তু ভারত আন্তর্জাতিক আইন মানছে না। এতে বাংলাদেশের নদীগুলো নাব্যতা সংকটে পড়ছে। প্রকৃতির ওপর বিরূপ প্রভাব পড়ছে।

তিনি বলেন, নদীতে পানি না থাকায় উত্তর-পশ্চিমাঞ্চলের প্রকৃতি বিপর্যয়ের মধ্যে পড়েছে। এখানে তাপমাত্রা বাড়ছে। বৃষ্টি হচ্ছে না। হঠাৎ ঝড় হচ্ছে। আবার নদী ভরাট হয়ে যাওয়ার কারণে উপকূলের নদীগুলোতে সাগরের পানি এসে ঢুকে পড়ছে। ফলে নদীর পানিও নোনা হয়ে যাচ্ছে। ফসল হচ্ছে না। আবাদি জমি অনাবাদি পড়ে থাকছে। তাই এখনই আমাদের এসব বিষয় নিয়ে কার্যকর পদক্ষেপ গ্রহণ করতে হবে। নদীগুলোর নাব্যতা রক্ষা করতে হবে। পুকুর-বিলগুলোকে বাঁচিয়ে রাখতে হবে।

ফজলে হোসেন বাদশা বলেন, পৃথিবীতে সবচেয়ে বেশি নদী থাকা ১০টি দেশের একটি বাংলাদেশ। বাঙালী জাতি এই নদীর সঙ্গে সংগ্রাম করেই দেশ গড়েছে। চরকে তারা চাষযোগ্য জমিতে রূপান্তর করেছে। নদীর পানি ব্যবহার করে চাষাবাদ করেছে। এখন চাষের জন্যও নদীতে পানি পাওয়া যাচ্ছে না। তাই নদীর কষ্ট দূর করতে এখনই পদক্ষেপ গ্রহণ করতে হবে। আর দেরি করা চলবে না।

তিনি বলেন, প্রভাবশালীরা নদী দখল করে বড় বড় ভবন করছে। এতে প্রকৃতি হুমকির মুখে পড়ছে। এ অবস্থায় নদী রক্ষায় ওয়ার্কার্স পার্টির নেতাকর্মীদের জনগণের সাথে সংগ্রাম করতে হবে। পরিবেশ ও প্রকৃতি রক্ষায় একটা বড় আন্দোলন গড়ে তুলতে হবে। আন্দোলন সফল হলে দেশের প্রকৃতি বাঁচবে।

সভায় বক্তা হিসেবে আরও বক্তব্য দেন- ওয়ার্কার্স পার্টির পলিটব্যুরো সদস্য মাহমুদুল হাসান মানিক ও আমিনুল ইসলাম গোলাপ। সভাপতিত্ব করেন আরেক পলিটব্যুরো সদস্য নজরুল ইসলাম হাক্কানী।

সোনালী/আরআর

শর্টলিংকঃ