পাবনা ও দিনাজপুরে বন্দুকযুদ্ধে নিহত ২

সোনালী ডেস্ক: পুলিশের সাথে বন্দুকযুদ্ধে পাবনার সাঁথিয়ায় ডাকাত সর্দার ও দিনাজপুরে মাদকব্যবসায়ী নিহত হয়েছে।
পাবনা প্রতিনিধি জানান, পাবনার সাঁথিয়ায় পুলিশের সাথে বন্দুকযুদ্ধে ডাকাত সর্দার নিহত হয়েছে। নিহত সরোয়ার ব্যাপারী ওরফে সরো (৩৬) সাঁথিয়া উপজেলার পুন্ডুরিয়া গ্রামের হার্বন অর রশিদ ওরফে হার্ব ব্যাপারীর ছেলে। পুলিশের দাবি নিহত ব্যক্তি আন্তঃজেলা ডাকাতদলের সর্দার ও হত্যা মামলার আসামি ছিলেন। পাবনার অতিরিক্ত পুলিশ সুপার গৌতম কুমার বিশ্বাস জানান, সাঁথিয়া উপজেলার শামুকজানি বাজারে ডাকাতির উদ্দেশ্যে একদল ডাকাত গোপনবৈঠক করছে এমন সংবাদের ভিত্তিতে সোমবার দিনগত রাত ২টার দিকে পাবনা ডিবি ও সাঁথিয়া থানা পুলিশ সেখানে যৌথ অভিযান চালায়। পুলিশের উপসি’তি টের পেয়ে ডাকাত দলের সদস্যরা পুলিশকে লৰ্য করে গুলি ছুঁড়তে শুর্ব করে। আত্মরৰার্থে পুলিশও পাল্টা গুলি ছোঁড়ে। কিছু সময় গুলিবর্ষণ চলার এক পর্যায়ে ডাকাতদলের সদস্যরা পালিয়ে যায়। পরে ঘটনাস’ল থেকে গুলিবিদ্ধ সরোয়ার ওরফে সরো কে উদ্ধার করে বেড়া উপজেলা স্বাস’্য কেন্দ্রে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন। এ ঘটনায় পুলিশের দুই সদস্য আহত হয়েছে। ঘটনাস’ল থেকে পুলিশ একটি দেশি বন্দুক, একটি কার্তুজ ও ধারালো অস্ত্র উদ্ধার করে।
বার্তা সংস’া এফএনএস জানায়, দিনাজপুরে বন্দুকযুদ্ধে এক ব্যক্তি নিহত হয়েছেন। তিনি মাদকব্যবসায়ী ছিলেন বলে পুলিশের ভাষ্য। বিরামপুর থানার ওসি মনির্বজ্জামান জানান, গতকাল মঙ্গলবার ভোরের দিকে বিরামপুর উপজেলার মির্জাপুর মাঠের পাশে একটি আমবাগানে গোলাগুলির এ ঘটনা ঘটে। নিহত ব্যক্তির নাম ফেরদৌস ফাহিম বলে জানালেও পুলিশ তার ঠিকানা বলতে পারেনি। ওসি মনির্বজ্জামান বলেন, সীমান্ত এলাকা দিয়ে একদল মাদক ব্যবসায়ী মাদক নিয়ে আসছে এমন খবর পেয়ে ওই আমবাগানে পুলিশ অবস’ান নেয়। এ সময় মাদক ব্যবসায়ীরা পুলিশের অবস’ান টের পেয়ে গুলি ছোড়ে। পুলিশ আত্মরক্ষার জন্য পাল্টা গুলি ছুঁড়লে অনেকে পালিয়ে গেলেও ফাহিম নিহত হন। ওসি বলেন, নিহত ফাহিম একজন তালিকাভুক্ত মাদক ব্যবসায়ী। ঘটনাস’ল থেকে পুলিশ একটি পাইপগান, তিনটি গুলি ও ১০০ বোতল ফেন্সিডিল উদ্ধার করেছে জানিয়ে তিনি বলেন, এ ঘটনায় তিন পুলিশ সদস্য আহত হয়েছেন। তারা হলেন এএসআই শাহাজাহান, নিরঞ্জন ও কনেস্টবল দেলোয়ার। তাদের দিনাজপুর পুলিশ হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।

শর্টলিংকঃ