নির্বাচনকে ঘিরে জম্মু-কাশ্মীরে থমথমে পরিস্থিতি

অনলাইন ডেস্ক: বিশেষ মর্যাদা ৩৭০ ধারা বাতিলের পর এই প্রথম নির্বাচন হচ্ছে জম্মু-কাশ্মীরে। নির্বাচন ঘিরে অতিরিক্ত নিরাপত্তা সদস্য মোতায়েন করা হয়েছে। ভোট হলেও থমথমে পরিস্থতি বিরাজ করছে ভারতশাসিত জম্মু-কাশ্মীরে।

জম্মু-কাশ্মীর ডিস্ট্রিক্ট ডেভেলপমেন্ট কাউন্সিলের প্রথম দফার ভোটগ্রহণ শুরু হয়েছে স্থানীয় সময় (২৮ নভেম্বর) শনিবার সকাল ৭টায়। ভোট চলবে দুপুর ২টা পর্যন্ত। তবে করোনা মহামারিতে বিশেষ ব্যবস্থা রেখেছে কোভিডে আক্রান্তদের জন্য। নির্দিষ্ট সময়ের এক ঘণ্টা পর ভোট দেওয়ার সুযোগ পাবেন আক্রান্তরা।
নির্বাচনে মূল লড়াই পিডিপি, ন্যাশনাল কনফারেন্সসহ কাশ্মীরের কয়েকটি ছোট রাজনৈতিক দলের জোট অর্থাৎ গুপকার জোটের বিরুদ্ধে বিজেপি। কংগ্রেস প্রথমে নিজেদের গুপকার জোটের অংশ হিসেবে ঘোষণা করলেও, জাতীয় রাজনীতির বাধ্যবাধকতার জন্য পরে পিছিয়ে এসেছে। গুপকার জোটের অন্যতম নেত্রী ও জম্মু-কাশ্মীরের সাবেক মুখ্যমন্ত্রী মেহেবুবা মুফতি দাবি করেন, ভোটের আগে তাদের প্রার্থীদের সঠিকভাবে প্রচারণা চালাতে দেয়া হয়নি। যদিও তার দাবি প্রত্যাখান করেছে নির্বাচন কমিশন।

আট দফার নির্বাচনে জম্মু ও কাশ্মীরের মোট ২৮০টি আসনে ভোটগ্রহণ হবে। ভোটগ্রহণ পর্ব শেষ হবে ১৯ ডিসেম্বর। ফলপ্রকাশ হবে আগামী ২২ ডিসেম্বর। প্রথম দফায় মোট ৪৩ আসনে ভোটগ্রহণ হবে। ২৫টি কাশ্মীরে এবং ১৮টি জম্মুতে। মোট সাত লাখ বৈধ ভোটার এখন ভোট দিতে পারবেন। বিশেষ মর্যাদা বাতিলের পর প্রথম কোনো নির্বাচনে মোতায়েন করা হয়েছে অতিরিক্ত ১৪৫ কোম্পানি কেন্দ্রীয় বাহিনী।

গত বছরে আগস্টে জম্মু-কাশ্মীরের বিশেষ মর্যাদা তুলে নিয়ে কেন্দ্র শাসন জারি করে মোদি প্রশাসন। এরপর থেকেই উপত্যকা অঞ্চলটিতে অস্থিরতা বিরাজ করছে।

সোনালী/আরআর

শর্টলিংকঃ