নাজমুল হুদার স্ত্রী ও দুই মেয়ের জামিন বহাল

এফএনএস: বিদেশে অর্থ পাচার করে লন্ডনে দুটি ফ্ল্যাট কেনার অভিযোগে দুর্নীতি দমন কমিশনের (দুদক) মামলায় সাবেক যোগা-যোগমন্ত্রী নাজমুল হুদার স্ত্রী সিগমা হুদা এবং দুই মেয়ে অন্তরা সেলিমা হুদা ও শ্রাবন্তী আমিনা হুদাকে হাইকোর্টের দেওয়া আগাম জামিন বহাল রেখেছেন আপিল বিভাগ। হাইকোর্টের আদেশের বির্বদ্ধে দুদকের আবেদন খারিজ করে গত-কাল রোববার এ আদেশ দেন বিচারপতি হাসান ফয়েজ সিদ্দিকীর নেতৃত্বাধীন তিন সদস্যের আপিল বেঞ্চ।
আদালতে দুদকের পক্ষে শুনানি করেন মো. খুরশীদ আলম খান। নাজমুল হুদার স্ত্রী ও দুই মেয়ের পক্ষে ছিলেন সাবেক অ্যাটর্নি জেনারেল এ এফ হাসান আরিফ। এর আগে গত ১৩ জানুয়ারি বিচার-পতি ওবায়দুল হাসান ও বিচারপতি এ কে এম জহির্বল হকের বেঞ্চ তাঁদের চার সপ্তাহের আগাম জামিন মঞ্জুর করেন। এর বির্বদ্ধে দুদক আপিল বিভাগে আবেদন করে। গত ৯ জানুয়ারি দুদকের সমন্বিত জেলা কার্যালয়, ঢাকা-১-এ দুদকের সহকারী পরিচালক মো. শফি উলৱাহ বাদী হয়ে দুটি মামলা করেন। মামলার আসামিরা হলেন নাজমুল হুদার স্ত্রী সিগমা হুদা এবং দুই মেয়ে অন্তরা সেলিমা হুদা ও শ্রাবন্তী আমিনা হুদা। দুই মামলাতেই সিগমা হুদাকে আসামি করা হয়েছে।
এক মামলায় সিগমা হুদা ও অন্তরা সেলিমা হুদার বির্বদ্ধে অভিযোগে বলা হয়, জ্ঞাত আয়বহির্ভূত সম্পদ অর্জন করে তিন লাখ ৮০ হাজার পাউন্ড স্টার্লিংয়ের সমপরিমাণ, অর্থাৎ প্রায় চার কোটি ছয় লাখ ৬০ হাজার টাকা যুক্তরাজ্যে পাচার করেছেন তারা। সেই অর্থ দিয়ে লন্ডনের ওয়াটার গার্ডেনসের বারউড প্যালেসে ২০০৩ সালের ২৬ জুন একটি ফ্ল্যাট কিনেছেন। অন্য মামলার অভিযোগে বলা হয়, সিগমা হুদা ও শ্রাবন্তী আমিনা হুদা জ্ঞাত আয়বহির্ভূত দুই লাখ ৫০ হাজার পাউন্ড স্টার্লিংয়ের সমপরিমাণ, অর্থাৎ দুই কোটি ৬৭ লাখ ৫০ হাজার টাকার সম্পদ অর্জন করে যুক্তরাজ্যে পাচার করেন। ওই অর্থ দিয়ে তাঁরা ২০০৬ সালের ১২ ডিসেম্বর লন্ডনের হেলনি কোর্টের ডেনহাম রোডে একটি ফ্ল্যাট কিনেছেন।

শর্টলিংকঃ