নওগাঁয় ১৯ হাজার মানুষ পানিবন্দি

নওগাঁ ব্যুরো: নওগাঁর সাত উপজেলার ১৭টি ইউনিয়নের ১৮ হাজার ৯শ’ ৬৮ পরিবার পানিবন্দি হয়েছে এবং এর ফলে মোট ক্ষতিগ্রস্থ হয়েছেন ৭৫ হাজার ৮শ’ ৬৬ জন। নওগাঁ জেলায় বন্যায় ক্ষতিগ্রস্থ পরিবারগুলোর মধ্যে ১৩৫ মেট্রিকটন চাল এবং ত্রাণ হিসেবে শিশুখাদ্য ও গো-খাদ্য ক্রয়ের জন্য ১৪ লাখ দুই হাজার ৫শ টাকা এবং ১ হাজার প্যাকেট শুকনা খাবার বিতরণ করা হয়েছে।

বিতরণকৃত টাকার মধ্যে রয়েছে ত্রাণ হিসেবে নগদ ৩ লক্ষ ২ হাজার ৫শ টাকা, শিশুখাদ্য ক্রয় বাবদ ৪ লক্ষ টাকা এবং গো-খাদ্য ক্রয় বাবদ ৭ লক্ষ টাকা।

নওগাঁ জেলার ত্রাণ ও পুর্ণবাসন কর্মকর্তা কামরুল আহসান জানিয়েছেন, চলতি বন্যায় সাত উপজেলার ১৭টি ইউনিয়নের ১৮ হাজার ৯শ ৬৮ পরিবার পানিবন্দি হয়েছে এবং এর ফলে মোট ক্ষতিগ্রস্থ হয়েছেন ৭৫ হাজার ৮শ ৬৬ জন। আক্রান্ত ইউনিয়নগুলোর মধ্যে রয়েছে আত্রাই উপজেলার ৮টি ইউনিয়ন, মান্দা উপজেলার ৪টি ইউনিয়ন এবং রানীনগর, নওগাঁ সদর, পোরশা, সাপাহার ও মাহদেবপুর উপজেলায় ১টি করে ইউনিয়ন।

সূত্র মতে, আত্রাই উপজেলায় ১৪ হাজার পরিবারের ক্ষতিগ্রস্থ ৫৬ হাজার মানুষের মধ্যে ৬৫ মেট্রিকটন চাল, ১ লক্ষ ১৭ হাজার ৫শ নগদ টাকা, শুকনো খাবার ৪শ প্যাকেট, শিশুখাদ্য ক্রয় বাবাদ ১ লক্ষ ৫০ হাজার টাকা ও গো-খাদ্য ক্রয় বাবদ ২ লক্ষ ১০ হাজার টাকা দেয়া হয়েছে।

মান্দা উপজেলায় ৪ হাজার ৪শ ৫০ পরিবারের ক্ষতিগ্রস্থ ১৭ হাজার ৮শ মানুষের মধ্যে ৫০ মেট্রিক টন চাল, ৯৫ হাজার নগদ টাকা, শুকনা খাবার ৩শ প্যাকেট, শিশুখাদ্য ক্রয় বাবদ ৯০ হাজার টাকা ও গো-খাদ্য ক্রয় বাবদ ১ লাখ ৭৫ হাজার টাকা  দেয়া হয়েছে।

রানীনগর উপজেলায় ৩শ পরিবারের ক্ষতিগ্রস্থ ১ হাজার ২শ পরিবারের মধ্যে ১০ মেট্রিক টন চাল, ১৫ হাজার নগদ টাকা, শিশুখাদ্য ৫০ প্যাকেট, শিশুখাদ্য ক্রয় বাবদ ৩০ হাজার টাকা ও গো-খাদ্য ক্রয় বাবদ ১ লক্ষ ৫ হাজার টাকা।

নওগাঁ সদর উপজেলায় ৫০ পরিবারের ক্ষতিগ্রস্থ ২শ মানুষের মধ্যে ১০ মেট্রিকটন চাল, ১৫ হাজার নগদ টাকা, শুকনা খাবার ৫০ প্যাকেট, শিশুখাদ্য ক্রয় বাবদ ৩০ হাজার টাকা, পোরশা উপজেলায় ১৯ পরিবারের ক্ষতিগ্রস্থ ৭০ জন মানুষের মধ্যে শুকনা খাবার ৭৫ প্যাকেট, শিশুখাদ্য ক্রয় বাবদ ৩০ হাজার টাকা ও গো-খাদ্য ক্রয় বাবদ ৭০ হাজার টাকা।

সাপাহার উপজেলায় ২০ পরিবারের ক্ষতিগ্রস্থ ৮০ জন মানুষের মধ্যে শুকনা খাবার ৭৫ প্যাকেট. শিশুখাদ্য ক্রয় বাবদ ৩০ হাজার টাকা ও গো-খাদ্য ক্রয় বাবদ ৭০ হাজার টাকা এবং মহাদেবপুর উপজেলায় ১২৯ পরিবারের ৫১৬ জন মানুষের মধ্যে শুকনা খাবার ৫০ প্যাকেট, শিশুখাদ্য ক্রয় বাবদ ৪০ হাজার টাকা ও গো-খাদ্য ক্রয় বাবদ ৭০ হাজার টাকা দেয়া হয়।

বর্তমানে জেলায় বন্যার্তদের সহযোগিতায় এখনও ২১৫ মেট্রিক টন জিআর কর্মসূচির চাল, জিআর নগদ ৪ লক্ষ ৯৭ হাজার ৫শ টাকা এবং ১ হাজার প্যাকেট শুকনো খাবার মজুদ রয়েছে বলে সুত্র জানায়।

এসবি/এমই

শর্টলিংকঃ