দ্বিতীয় পরীক্ষা না করেই করোনামুক্ত ঘোষণা, পরদিনই মৃত্যু


স্টাফ রিপোর্টার: দ্বিতীয়বার নমুনা পরীক্ষা না করেই রাজশাহীর চারঘাট উপজেলার করোনা শনাক্ত হওয়া এক ব্যক্তিকে করোনামুক্ত ঘোষণা করা হয়েছিল। অনুমতি দেয়া হয়েছিল বাড়ির বাইরে যাওয়ারও। এর পরদিনই ওই ব্যক্তি মারা গেছেন।

তার নাম মনসুর রহমান (৩০)। চারঘাটের ঝিকড়া গ্রামে তার বাড়ি। সোমবার (২২ জুন) সকালে বাড়িতেই মারা গেছেন তিনি। আগের দিন রোববার (২১ জুন) উপজেলা স্বাস্থ্য বিভাগ তাকে করোনামুক্ত ঘোষণা দিয়ে বাড়ি থেকে বের হওয়ার অনুমতি দিয়েছিল। অথচ দ্বিতীয়বার তার নমুনায় পরীক্ষা করা হয়নি।

উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) সৈয়দা সামিরা বলেন, স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের নির্দেশনা আছে কারও শরীরে যদি করোনার উপসর্গ না থাকে তবে একটা নির্দিষ্ট সময় পর তাকে করোনামুক্ত বলা যাবে। সে অনুযায়ী রোববার চিকিৎসকরা মনসুরকে বলেছিলেন, চাইলে তিনি এখন বাড়ি থেকে বের হতে পারবেন। তবে তার বাড়ির লকডাউন তুলে নেয়া হয়নি। এটা করা হলে নিশ্চয় আমি জানতাম। তবে দ্বিতীয়বার নমুনা পরীক্ষা হয়নি বলে নিশ্চিত করেছেন ইউএনও।

এর আগে গত ৬ জুন রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নমুনা পরীক্ষায় মনসুরের করোনা শনাক্ত হয়। সেদিন যোগাযোগ করা হলে মুঠোফোনে তিনি সোনালী সংবাদকে জানিয়েছিলেন, তার করোনার উপসর্গ নেই।

তিনি বলেছিলেন, তিনি পাবনার রূপপুর পারমাণবিক বিদ্যুৎ কেন্দ্রে একটি বেসরকারি প্রতিষ্ঠানের গাড়িচালক হিসেবে কাজ করেন। ঈদের ছুটিতে বাড়ি এসেছিলেন। এখন বিদ্যুৎ কেন্দ্র থেকে বলা হয়েছে, সেখানে ঢুকতে হলে করোনা নেগেটিভ সনদ নিয়ে আসতে হবে। সে জন্যই তিনি নমুনা দিয়েছিলেন পরীক্ষার জন্য। এতেই তার করোনা পজিটিভ রিপোর্ট আসে।

চারঘাটের ইউএনও সৈয়দা সামিরা বলেন, মনসুর রহমান হৃদরোগে ভুগতেন। সে কারণেই তার মৃত্যু হয়েছে বলে প্রাথমিকভাবে ধারণা করা হচ্ছে। তবে যেহেতু করোনা পজিটিভ রিপোর্ট এসেছিল তাই স্বাস্থ্যবিধি মেনে লাশ দাফন করতে বলা হয়েছে।

সোনালী/আরআর

শর্টলিংকঃ