দেশে পুরুষের চেয়ে নারীদের আয়ু বেশি, গড় সাড়ে ৭২ বছর

  • 21
    Shares

অনলাইন ডেস্ক:

বাংলাদেশের জনসংখ্যা বৃদ্ধির পাশাপাশি গড় আয়ু বেড়েছে। বর্তমানে দেশে জনসংখ্যা ১৬ কোটি ৬৫ লাখ। গড় আয়ু ৭২ দশমিক ৬ বছর। এ তথ্য উঠে এসেছে বাংলাদেশ পরিসংখ্যান ব্যুরোর (বিবিএস) ‘রিপোর্ট অন বাংলাদেশ স্যাম্পল ভাইটাল স্ট্যাটিস্টিকস-২০১৯’ প্রতিবেদনে।

গতকাল মঙ্গলবার রাজধানীর আগারগাঁওয়ে পরিসংখ্যান ভবন অডিটরিয়ামে আনুষ্ঠানিকভাবে প্রতিবেদনটি প্রকাশ করা হয়।

বাংলাদেশ পরিসংখ্যান ব্যুরোর মহাপরিচালক মোহাম্মদ তাজুল ইসলামের সভাপতিত্বে ভার্চুয়াল অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে যোগ দেন পরিকল্পনামন্ত্রী এমএ মান্নান।

প্রতিবেদনে বলা হয়, ২০১৯ সালের হিসেবে প্রত্যাশিত আয়ুষ্কাল ৭২ দশমিক ৬ বছর, যা ২০১৮ সালে ছিল ৭২ দশমিক ৩ বছর। এ ছাড়া ২০১৭ সালে ৭২ বছর, ২০১৬ সালে ৭১ দশমিক ৬ বছর এবং ২০১৫ সালে ছিল ৭০ দশমিক ৯ বছর।

প্রত্যাশিত গড় আয়ু পুরুষের চেয়ে নারীদের বেশি। ২০১৯ সালে পুরুষের প্রত্যাশিত গড় আয়ু হচ্ছে ৭১ দশমিক ১ বছর। ২০১৮ সালে ছিল ৭০ দশমিক ৮ বছর।

২০১৭ সালে ৭০ দশমিক ৬ বছর, ২০১৬ সালে ৭০ দশমিক ৩ বছর এবং ২০১৫ সালে ছিল ৬৯ দশমিক ৪ বছর। অন্যদিকে নারীদের ক্ষেত্রে দেখা যায়, ২০১৯ থেকে ২০১৫ সাল পর্যন্ত।

পর্যায়ক্রমে প্রত্যাশিত গড় আয়ু হচ্ছে ৭৪ দশমিক ২ বছর, ৭৩ দশমিক ৮ বছর, ৭৩ দশমিক ৫ বছর, ৭২ দশমিক ৯ বছর ও ৭২ বছর।

প্রতিবেদনে আরও বলা হয়, বয়স্ক শিক্ষার হার (১৫ বছর বা তার বেশি) পল্লী এলাকার চেয়ে শহর এলাকায় প্রায় ২০ দশমিক ২ শতাংশ বেশি। সাত বছর বা তার বেশি বয়স্ক শিক্ষার ক্ষেত্রে এই হার প্রায় ১৭ দশমিক ২ শতাংশ।

তবে ২০১৩ সাল থেকে শহর এলাকার তুলনায় পল্লী এলাকায় বয়স্ক শিক্ষার হার দ্রুত গতিতে বাড়ছে। মরণশীলতার ক্ষেত্রে বাংলাদেশের উন্নতি হয়েছে। ২০১৯ সালের হিসাব অনুযায়ী, প্রতি হাজার মানুষের মধ্যে মরণশীলতা ছির ৪ দশমিক ৯ জন।

২০১৫ সালে এটি ছিল পাঁচ দশমিক একজন। এ ছাড়া প্রতি হাজার জীবিত জন্ম নেওয়া শিশুর ক্ষেত্রে মরণশীলতার হার দাঁড়িয়েছে ২১ জনে। যেটি ২০১৫ সালে ছিল হাজারে ২৯ জন।

এছাড়া ২০১৯ সালে এক থেকে চার বছর বয়সী শিশু মৃত্যু কমে হয়েছে প্রতি হাজারে এক দশমিক সাতজন। যেটি ২০১৫ সালে ছিল দুজন। অন্যদিকে মাতৃমৃত্যুর হারও কমেছে।

এটি গত পাঁচ বছরে সমহারে কমেছে। ২০১৫ সালে মাতৃ মৃত্যৃর অনুপাত ছিল এক দশমিক ৮১, যেটি ২০১৯ সালে কমে দাঁড়িয়েছে ১ দশমিক ৬৫- তে।

প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, এই সময়ে পুরুষদের প্রথম বিবাহের গড় বয়স কিছুটা কমেছে। তবে বেড়েছে নারীদের। পুরুষদের বিবাহের গড় বয়স ২০১৫ সালে ছিল ২৫ দশমিক ৩ বছর।

সেটি কমে ২০১৯ সালে এসে দাঁড়িয়েছে ২৪ দশমিক দুই বছরে। পক্ষান্তরে ২০১৫ সালে নারীদের বিবাহের বয়স ছিল ১৮ দশমিক চার বছর। সেটি কিছুটা বেড়ে ২০১৯ সালে দাঁড়িয়েছে ১৮ দশমিক পাঁচ বছরে।

সোনালী সংবাদ/এইচ.এ

শর্টলিংকঃ