দুর্গাপুরে চিকিৎসকের বিরুদ্ধে রোগীর সাথে দুর্ব্যবহারের অভিযোগ

দুর্গাপুর প্রতিনিধি: দুর্গাপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের রোগীর সাথে এক চিকিৎসকের বিরুদ্ধে অসদাচরণের অভিযোগ উঠছে। বৃহস্পতিবার দুর্গাপুর স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে এ ঘটনা ঘটে।

চিকিৎসা সেবা নিতে আসা পারুল ও রফিকুল ইসলাম নামের এক দম্পতি ওই চিকিৎসকের বিরুদ্ধে অসদাচরণের অভিযোগ এনে উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তার কাছে লিখিত অভিযোগ করেছেন।

অভিযোগে জানা যায়, বৃহস্পতিবার উপজেলার কিসমত গণকৈড় ইউনিয়নের ভবানীপুর গ্রামের পারুল পারভীন নামের এক নারী চিকিৎসা নিতে দুর্গাপুর স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে আসেন। এ সময় তার স্বামী রফিকুলও সঙ্গে ছিলেন। বেলা ১২টার দিকে তারা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে প্রবেশ করে নিয়ম অনুযায়ী হাসপাতাল থেকে টিকিট ক্রয় করেন।

পরে পারুল ও তার স্বামী ডাক্তারের একটি কক্ষে প্রবেশ করেন। এ সময় ওই ডাক্তার তাদের কথা শুনে পাশের রুমে অর্থোপেডিক কনসালটেন্ট ডা. মো. আবদুল্লাহ’র কাছে যেতে বলেন। ওই ডাক্তারের কথামতে ওই দম্পতি ডা. মো. আবদুল্লাহ’র রুমে প্রবেশ করার চেষ্টা করেন।

এ সময় ডা. আবদুল্লাহ তাদের বাধা প্রয়োগ করে জানতে চান এখানে তাদেরকে পাঠিয়েছেন। তখন পারুল বলেন, স্যার আমার হাতের হাড়ের সমস্যা পাশের রুমের ডাক্তার আমার কথা শুনে আপনার কাছে পাঠিয়েছেন।

এ সময় অর্থোপেডিক কনসালটেন্ট ডা. আবদুল্লাহ রোগী পারুলের প্রতি ক্ষিপ্ত হয়ে উঠেন। পরে ডা. আবদুল্লাহ পাশের রুমের ওই ডাক্তারের কাছে আসেন এবং বলেন আপনি কেন তাকে আমার কাছে পাঠিয়েছেন। আপনারই যাতা লিখে দিলেই পারতেন। পরে ওই দম্পতি চিকিৎসকের এ দুর্ব্যবহারে চিকিৎসা সেবা না নিয়েই হাসপাতাল ত্যাগ করেন।

এ বিষয়ে দুর্গাপুর স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের অর্থোপেডিক কনসালটেন্ট ডা. মো. আবদুল্লাহ’র ব্যবহৃত মোবাইল ফোনে একাধিকবার কল করা হলেও তিনি রিসিভ করেননি।

জানতে চাইলে দুর্গাপুর উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তার ডা. আসাদুজ্জামান বলেন, চিকিৎসকের বিরুদ্ধে অসদাচরণের অভিযোগ এনে পারুল ও রফিকুল ইসলাম নামের এক দম্পতি লিখিত অভিযোগ দিয়েছেন। অভিযোগের সুত্র ধরে তদন্ত সাপেক্ষে ব্যবস্থা নেওয়া হবে। তিনি আরও বলেন, ওই চিকিৎসকের বিরুদ্ধে আগেও এ ধরনের অভিযোগ রয়েছে।

সোনালী/এমই

শর্টলিংকঃ