দুদকের জালে ফারুক চৌধুরীসহ ৮ এমপি

এমপি ওমর ফারুক চৌধুরী

অনলাইন ডেস্ক: সাবেক শিল্পপ্রতিমন্ত্রী ওমর ফারুক চৌধুরীসহ ৮ সংসদ সদস্যের সম্পদের অনুসন্ধান চলছে দুর্নীতি দমন কমিশনে (দুদক)। এদের মধ্যে বেশিরভাগই সরকারদলীয়।

ঢাকার একটি বেসরকারি টেলিভিশন শনিবার (১০ অক্টোবর) এ নিয়ে একটি বিশেষ প্রতিবেদন প্রচার করেছে।

ফারুক চৌধুরী রাজশাহী-১ আসনের আওয়ামী লীগের সংসদ সদস্য হিসেবে এবারও নির্বাচিত হয়েছেন। তিনি রাজশাহী জেলা আওয়ামী লীগের সদ্য সাবেক সভাপতি।

টেলিভিশন চ্যানেলটির প্রতিবেদনে বলা হয়, এরই মধ্যে ওমর ফারুক চৌধুরীসহ এই ৮ সংসদ সদস্য ও তাদের স্ত্রী-সন্তানদের নামে বিপুল সম্পদের হদিশ পেয়েছে দুদক।

ওই প্রতিবেদনে জানানো হয়, ২০১৯ সালের সেপ্টেম্বরে ক্যাসিনোবিরোধী অভিযানে নাম আসে ৫ জন সংসদ সদস্যের। দুদকের গোয়েন্দা দলের কাছেও এদের বিপুল পরিমাণ সম্পদের তথ্য আসে। এরপরই জাতীয় সংসদের হুইপ চট্টগ্রামের শামসুল হক চৌধুরী, সুনামগঞ্জ-১ আসনের সংসদ সদস্য মোয়াজ্জেম হোসেন রতন, নারায়নগঞ্জ-২ আসনের নজরুল ইসলাম বাবু, ভোলা-৩ আসনের নুরনবী চৌধুরী শাওন ও বরিশাল-৪ আসনের সংসদ সদস্য পঙ্কজ দেবনাথের সম্পদ খতিয়ে দেখার সিদ্ধান্ত নেয় দুর্নীতিবিরোধী সংস্থাটি।

সেই প্রতিবেদনে দুদকের আরও তৎপরতা তুলে ধরে জানানো হয়, এ বছরের ফেব্রুয়ারিতে লক্ষীপুর-২ আসনের স্বতন্ত্র সংসদ সদস্য শহিদুল ইসলাম পাপুলের অবৈধ সম্পদ খোঁজা শুরু করে দুদক।

একই অভিযোগে তার স্ত্রী সংরক্ষিত নারী আসনের সংসদ সদস্য সেলিনা ইসলামকে জিজ্ঞাসাবাদ করে সংস্থাটি।

সম্প্রতি দুদক সাবেক শিল্প প্রতিমন্ত্রী ও রাজশাহী-১ আসনের সংসদ সদস্য ওমর ফারুক চৌধুরীর বিরুদ্ধে তদন্ত শুরু করেছে বলে জানিয়ে প্রতিবেদনে বলা হয়, তার বিরুদ্ধে খাস পুকুর ইজারায় দুর্নীতি, সার ডিলার নিয়োগে অনিয়ম, স্কুল-কলেজে শিক্ষক নিয়োগে অনিয়মসহ সরকারি অর্থ আত্মসাতের মাধ্যমে অবৈধ সম্পদ অর্জনের তথ্য পেয়েছে দুদক।

শুধু এই সংসদ সদস্যরাই নন, তাদের স্ত্রী ও সন্তানদের নামেও বিপুল সম্পদের তথ্য মিলেছে বাংলাদেশ ব্যাংকের আর্থিক গোয়েন্দা ইউনিটের (বিএফআইইউ) তরফে।

দুদক কমিশনার (অনুসন্ধান) ড. মোজাম্মেল হক খানের উদ্ধৃতি দিয়ে টেলিভিশনটি জানায়, তাদের ব্যাংক হিসাব, আয়কর নথি ও স্থাবর অস্থাবর সম্পত্তির হিসাব খতিয়ে দেখা হচ্ছে।

আর এমপি পাপুলের মানি লন্ডারিং বিষয়ক তদন্ত শেষ পর্যায়ে রয়েছে। কমিশনার আরও বলেন, “আমি মনে করি (এসব) প্রতিটি কেসেরই অগ্রগতি রয়েছে।”

সূত্র: ডিবিসি ও উত্তরকাল

সোনালী/এমই

শর্টলিংকঃ