দুই সন্তানকে হত্যার পর গায়ে আগুন দিয়ে নারীর আত্মহত্যার চেষ্টা

সোনালী ডেস্ক: রাজধানীতে দুই সন্তানকে গলা কেটে হত্যার পর নিজের গায়ে আগুন দিয়ে আত্মহত্যার চেষ্টা করেছেন এক নারী। দাম্পত্য কলহের জেরেই দুই সন্তানকে হত্যার পর আখতারুন্নেসা পপি নামে ওই নারী আত্মহত্যার চেষ্টা চালিয়েছিলেন ধরেই চলছে পুলিশের তদন্ত।
গতকাল শনিবার সকালে ঢাকার খিলগাঁওয়ের গোড়ানের একটি বাসা থেকে দুই মেয়ের জবাই করা লাশের সঙ্গে অগ্নিদগ্ধ পপিকে উদ্ধার করে পুলিশ। পপি (৩৮) এখন ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন। তার দেহের ১৮ শতাংশ পুড়েছে। তিনি দুই সন্তানকে হত্যার কথা স্বীকারও করেছেন কর্তব্যরত নার্সদের কাছে। ঘটনাস্থলে পাওয়া বিভিন্ন আলামত এবং পাওয়া নানা তথ্যের ভিত্তিতে পুলিশ কর্মকর্তারা অনেকটাই নিশ্চিত, পপিই তার দুই সন্তানকে খুন করেছেন।
খিলগাঁও থানার ওসি মশিউর রহমান বলেন, সরাসরি বলতে চাই না। তবে এ ধরনের ধারণা মাথায় নিয়ে পুলিশ তদন্ত করছে। নিহত শিশু দুটি হল মেহজাবিন আলভী (১২) ও জান্নাতুল ফেরদৌস (৭)। আলভী খিলগাঁও ন্যাশনাল আইডিয়াল স্কুলের চতুর্থ শ্রেণিতে, জান্নাত একই স্কুলে প্রথম শ্রেণিতে পড়ত। গোড়ানের ওই বাসায় দুই সন্তানকে নিয়ে থাকতেন পপি। তার স্বামী মোজাম্মেল হক বিপ্লব মুন্সীগঞ্জ জেলার শ্রীনগরে থাকেন, সেখানে তার বৈদ্যুতিক সরঞ্জামের দোকান রয়েছে। মোজাম্মেল প্রতি শুক্রবার মুন্সীগঞ্জ থেকে ঢাকায় আসতেন। তবে এই গত শুক্রবার আসেননি। ঘটনার সময়ও তিনি বাড়িতে ছিলেন না।

শর্টলিংকঃ