ডিজিটাল বাংলাদেশ গঠনের বাধা দূর করুন

ডিজিটাল ব্যবস্থায় প্রশাসনিক ও সেবাদান সংস্থাগুলোর কাজের সুফল পেতে শুরু করেছে মানুষ। তবে মাঝে মধ্যেই ভেঙে পড়ছে এই ব্যবস্থা। ওয়েব সাইটের বেহাল দশায় বিভিন্ন সরকারি দপ্তরেও এখন বেহাল দশা।

রাজশাহীতে মোট ৩৯৪টি সরকারি অধিদপ্তর বা প্রতিষ্ঠানের ওয়েবসাইট রয়েছে। এর মধ্যে জেলা প্রশাসনের আওতায় ৪৮টি। এছাড়া ৯টি উপজেলায় আছে আরও ৩১০টি। এসব ওয়েবসাইটের জন্য প্রতিটি দপ্তরে একজন করে কর্মী এবং দেখভালের জন্য আছেন একজন আইটি অফিসার। এই অবকাঠামো থাকা সত্ত্বেও সরকারি দপ্তরের সাইটগুলোর বেহাল দশার কথা গতকালের সোনালী সংবাদে প্রকাশ হয়েছে।

তথ্যের গরমিল, পুরনো তথ্য এমনকি মাঝে মধ্যেই বন্ধ থাকে সাইটগুলো। অধিকাংশ ওয়েবসাইটেই হালনাগাদ তথ্য থাকে না। পরিস্থিতি সামাল দিতে সম্প্রতি ওয়েবসাইট হালনাগাদের নির্দেশনা দিতে হয়েছে মন্ত্রিপরিষদ বিভাগকে। সব মন্ত্রণালয় ও বিভাগের সিনিয়র সচিব, সচিব, বিভাগীয় কমিশনার, জেলা প্রশাসক এবং উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তাদের চিঠি দিয়ে ওয়েবসাইট হালনাগাদ করার তাগিদ দেয়া হয়েছে। তারপরও উন্নতির দেখা মিলছে না।

সার্ভারের ত্রুটির কারণে গত মাসেই রাজশাহী জেলা প্রশাসনের কার্যালয়ের সাইট অন্তত দু’বার বন্ধ হয়েছিল। এছাড়া বিদ্যুৎ উন্নয়ন বোর্ড, নেসকো, কৃষি বিপণন কর্মকর্তা, পল্লী বিদ্যুৎ সমিতি, মৃত্তিকা সম্পদ, কৃষি তথ্য সার্ভিস, তুলা উন্নয়ন বোর্ড, পাট অধিদপ্তর, বরেন্দ্র বহুমুখী উন্নয়ন কর্তৃপক্ষ, জেলা খাদ্য নিয়ন্ত্রকের কার্যালয়, সামাজিক বন বিভাগ, জেলা রেজিস্ট্রারের কার্যালয়, জেলা সঞ্চয় অফিস, ‘আমার বাড়ি আমার খামার’ প্রকল্পের মতো দপ্তরগুলোর সাইটে অফিসে যোগাযোগের বিকল্প ঠিকানা পর্যন্ত নেই। নেই গুগোল ম্যাপের লিংক। কোনোটিতে সিটিজেন চার্টার নেই, আবার কোনোটিতে নেই কর্মকর্তার ফোন নম্বর। কোথায়ও সাইটে প্রবেশ করা যায় না। ফলে এসব সাইট সেবাদানের পরিবর্তে জনভোগান্তির কারণ হয়ে উঠেছে।

সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তারা এজন্য ওয়েবসাইটে কন্টেন্ট আপলোড ও ভিজিটর বেড়ে যাওয়ায় ত্রুটির কথাই বলেছেন। সাইটগুলেতে ছবি আপলোডের সমস্যা ও বড় আকারের ফাইলের কারণে কনটেন্টের সমস্যার কথাও জানা গেছে। সার্ভারের কারণেও বন্ধ থাকে অনেক সাইট। জেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে খারাপ ও নষ্ট সাইটের তথ্য জানতে চাওয়া হয়েছে এবং অন্য প্রতিষ্ঠানগুলোকেও জানাতে বলা হয়েছে। তবেই নাকি এ বিষয়ে কার্যকর ব্যবস্থা নেয়া যাবে।

এমন অবস্থা যে ডিজিটাল বাংলাদেশের সম্ভাবনাকে মøান করে দেয় সেটা বলার অপেক্ষা রাখে না। তাই, এক্ষেত্রে বিদ্যমান বাধাসমূহ দূর করা জরুরি।

 

সোনালী/এমই

শর্টলিংকঃ