টিসিবির পণ্যে ক্রেতাদের অসন্তোষ

  • 10
    Shares

স্টাফ রিপোর্টার: রাজশাহী নগরীতে ট্রাকে করে টিসিবির পণ্য বিক্রির প্রক্রিয়া নিয়ে ক্রেতাদের অসন্তোষ প্রকাশ করতে দেখা গেছে। দ্রব্য মূল্যের উর্ধগতির লাগাম ধরতে রাষ্ট্রায়ত্ত প্রতিষ্ঠান টিসিবি’র মাধ্যমে পণ্য বিক্রির উদ্যোগ নেয়া হয়। কিন্তু টিসিবির ডিলারদের কার্যক্রম নিয়ে মানুষের অভিজ্ঞতা অনেকটাই তিক্ত।

বর্তমানে বাজারে চিনি, সয়াবিনসহ নিত্যপ্রয়োজনীয় বেশ কিছ’ পণ্যের মূল্য অস্বাবিক বৃদ্ধি পেলে টিসিবি ট্রাকের মাধ্যমে ওই পণ্যগুলি বিক্রির উদ্যোগ নেয়। নগরীতে এমন বেশ কয়েকটি ট্রাকে পণ্য বিক্রি করতে দেখা দেখা গেছে। আর এসব ট্রাকগুলি থেকে পণ্য নিতে আসা অনেক ক্রেতাকেই পড়তে হয়েছে বিরুপ অবস্থার মধ্যে।

বুধবার নগরীর কোর্ট চত্বরে ডিলার মেসার্স জয়নাল আবেদিন ট্রাকে পণ্য করছিল। গ্রাহক হাফিজ চিনি এবং সোয়াবিন নিতে চাইলে তাকে বলা হয় চিনি এবং সয়াবিনের সাথে পেঁয়াজ এবং মসুর ডাল নিতে হবে। চারটি এক সাথে না নিলে সিঙ্গেল কোন পণ্য দেয়া যাবে না। আর চার পণ্যের এক সাথে প্যাকেজ মূল্য ৫০০ টাকা।

ওই ক্রেতা জানান পণ্যের মধ্যে রয়েছে বাধ্যতামুলক ৭ কেজি পেঁয়াজ, ২ কেজি বিদেশী মসুর ডাল, ২ কেজি চিনি এবং ২ কেজি সয়াবিন। অর্থাৎ মোট ১৩ কেজি। ট্রাকে এসব পণ্যগুলির মূল্য পেঁয়াজ ২০ টাকা কেজি, চিনি এবং মসুরের ডাল ৫০ টাকা কেজি এবং সয়াবিন ২ কেজি ১৬০ টাকা।

এসময় ট্রাকে পণ্যবিক্রেতার নিকট প্যাকেজ করে পণ্য বিক্রির বিষয়ে জানতে চাইলে সে বলে অফিস থেকে আমাদের নির্দেশ দেয়া হয়েছে এক সাথে চার পণ্য ছাড়া পৃথকভাবে কোন পণ্য বিক্রি করা যাবে না। হাফিজের মত এমন অভিযোগ আরো অনেক গ্রাহকের।

এবিষয় নিয়ে বৃহস্পতিবার টিসিবি রাজশাহী আঞ্চলিক কার্যালয়ের উর্ধতন কার্যনির্বাহী (অফিস প্রধান) রবিউল মোর্শেদের সাথে বললে তিনি জানান কোন রকম প্যাকেজের নির্দেশনা নাই। কেউ এরকম করলে সে ঠিক করেনি। আমি এ বিষয়টি দেখবো।

এদিকে নগরীর খোলা বাজারে দেশী পেঁয়াজ বিক্রি হচ্ছে ২৫ থেকে ৩০ টাকা কেজি, চিনি ৬৬ টাকা কেজি, মসুর ডাল ৬৫ টাকা এবং সোয়াবিন ১২০ থেকে ১২২ টাকা লিটার। টিসিবি পণ্য বিক্রেতারা সয়াবিন, ডাল এবং চিনির সাথে পেঁয়াজ নিতে ক্রেতাদের বাধ্য করছে এমন অভিযোগ ক্রেতাদের।

অন্যদিকে টিসিবি পণ্য বিক্রির প্রক্রিয়া এবং দুর্নীতি নিয়ে ইতিপূর্বেও বিভিন্ন অভিযোগ উঠেছে।

 

সোনালী/এমই

শর্টলিংকঃ