গর্ভবতী না হয়েও মাতৃত্ব ভাতা!

বাগমারা প্রতিনিধি: গর্ভবতী না হয়েও মাতৃত্ব ভাতার কার্ড প্রদান করা হয়েছে ৭ বছর পূর্বে তালাকপ্রাপ্ত এক নারীকে। বিষয়টি প্রকাশের পর এলাকায় চাঞ্চল্যের সৃষ্টি হয়েছে। ঘটনাটি ঘটেছে বাগমারা উপজেলার দ্বীপপুর ইউনিয়নে।

এ ঘটনায় ইউপি চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণের দাবিতে উপজেলা নির্বাহী অফিসার ও রাজশাহীর দুর্নীতি দমন কমিশনসহ বিভিন্ন দপ্তরে লিখিত অভিযোগ দিয়েছেন খোদ ওই ইউপির সংরক্ষিত নারী সদস্য হাছিনা বানু।

অভিযোগ সূত্রে জানা যায়, বাগমারার দ্বীপপুর ইউনিয়নের নানসর গ্রামের এছের আলীর মেয়ে সুমি আক্তারের ৭ বছর পূর্বে তালাকের মাধ্যমে স্বামী-স্ত্রীর বিচ্ছেদ ঘটে। এরপর থেকেই সুমি আক্তার তার বাবার বাড়িতে অবিবাহিত অবস্থায় বসবাস করছেন। আজও তার অন্য কোথাও বিয়ে হয়নি।

অথচ ইউপি চেয়ারম্যান মকলেছুর রহমান দুলাল অবৈধভাবে ২০১৯-২০ অর্থ বছরে তার নামে মাতৃত্বকালীন ভাতার কার্ড প্রদান করেছেন। ওই কার্ডের তালিকা অনুযায়ী সুমি আক্তারের নামে সরকারি কোষাগার থেকে সংশ্লিষ্ট ব্যাংকে তার হিসাব নম্বরে টাকাও এসেছে।

ইউপি চেয়ারম্যান মকলেছুর রহমান দুলাল বলেন, তার বিয়ে হয়েছে জানি। কিন্তু তালাকের বিষয়টি আমি জানিনা।

বাগমারা উপজেলা নির্বাহী অফিসার শরিফ আহম্মেদ বলেন, এ বিষয়ে একটি অভিযোগ পাওয়া গেছে। তদন্ত করে ব্যবস্থা নেয়া হবে।

 

সোনালী/এমই

শর্টলিংকঃ