খেলার মাঠেই মৃত্যুর কোলে ক্রীড়া সাংবাদিক মোস্তাক

অনলাইন ডেস্ক:

খেলার সাংবাদিক। তাই খেলার মাঠে মোস্তাক আহমেদ খানের ছিল নিত্য পদচারণা। ম্যাচ কাভার করতেন। মঙ্গলবার, ২৭ অক্টোবর অবশ্য খেলার মাঠে এসেছিলেন খেলা কাভার করতে নয়, নিজে খেলতে।

আর সেখানেই খেলার মাঝেই বুক চেপে মাটিতে পড়ে গেলেন। আর উঠতে পারলেন না। চলে গেলেন অসীমের পানে। সতীর্থরা তাকে হাসপাতালে নেয়ার পর চিকিৎসক জানালেন, শরীরে সাড়া নেই। হৃদযন্ত্রের ক্রিয়া বন্ধ হয়ে মারা গেছেন তিনি (ইন্না নিল্লালে .. রাজিউন)।

মোস্তাক আহমেদ বিডি স্পোর্টস ডট কমে কাজ করতেন। ৫৫ বছর বয়সী সদালাপী এই ক্রীড়া সাংবাদিক ছিলেন বাংলাদেশ স্পোর্টস প্রেস এসোসিয়েশন (বিএসপিএ) এর সদস্য।

ক্রীড়া সাংবাদিকদের এই সংগঠনের বার্ষিক ক্রীড়া আসর স্পোর্টস কার্নিভালে অংশ নিতে আসেন মোস্তাক। মঙ্গলবার বঙ্গবন্ধু জাতীয় স্টেডিয়ামের ব্যাডমিন্টনের উডেন ফ্লোরে খেলায় নামেন তিনি।

সেই খেলার মাঝেই হঠাৎ করে মাটিতে পড়ে যান। সতীর্থরা তাকে সঙ্গে সঙ্গে কাকরাইলের ইসলামী ব্যাংক হাসপাতালে নিয়ে যান। কর্তব্যরত চিকিৎসকরা তাকে মৃত ঘোষণা করেন।

স্টেডিয়ামের প্রিয়মুখ মোস্তাক আহমেদের আকস্মিক মৃত্যুতে সতীর্থ সাংবাদিকরা কান্নায় ভেঙ্গে পড়েন। উৎসবের মেজাজ নিয়ে শুরু হওয়া স্পোর্টস কার্নিভালে মুহূর্তেই শোকের মাতম। সঙ্গে সঙ্গে পুরো স্পোর্টস কার্নিভাল স্থগিত করা হয়।

ছিপছিপে গড়নের মোস্তাক আহমেদ খান ডায়াবেটিস এবং লো প্রেসারে ভুগছিলেন। স্ত্রী, দুই ছেলে ও এক মেয়ে রেখে গেছেন মোস্তাক আহমেদ। তার মৃত্যুতে বিএসপিএ গভীর শোক প্রকাশ করছে। ক্রীড়া অন্তঃপ্রাণ মোস্তাক এভাবে চলে যাওয়ায় বিএসপিএ শোকাহত। এ কারণেই মার্সেল বিএসপিএ স্পোর্টস কার্নিভাল স্থগিত করা হয়েছে।

সোনালী সংবাদ/এইচ.এ

শর্টলিংকঃ