ক্ষমা নয়, মিনুকে গ্রেপ্তারের দাবি নগর ওয়ার্কার্স পার্টির

  • 15
    Shares


স্টাফ রিপোর্টার: জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের প্রতি অবজ্ঞা করে বক্তব্য এবং প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে প্রাণনাশের ইঙ্গিত দিয়ে বিএনপি চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা মিজানুর রহমান মিনু যে অপরাধ করেছেন তা ক্ষমার অযোগ্য উল্লেখ করে তাকে দ্রুত গ্রেপ্তারের দাবি জানিয়েছেন বাংলাদেশের ওয়ার্কার্স পার্টি রাজশাহী মহানগর কমিটির নেতৃবৃন্দ।

বৃহস্পতিবার বিকেলে রাজশাহী মহানগরীর সাহেববাজার জিরোপয়েন্টে আয়োজিত এক বিক্ষোভ-সমাবেশ থেকে এ দাবি জানান দলটির নেতারা। বঙ্গবন্ধুকে অবমাননা ও প্রধানমন্ত্রীকে প্রাণনাশের হুমকি দেয়ায় মিনুকে গ্রেপ্তারের দাবিতে ওয়ার্কার্স পার্টির মহানগর কমিটি এই বিক্ষোভ সমাবেশের আয়োজন করে।

সমাবেশের আগে একটি বিক্ষোভ মিছিলও বের করা হয়। মিছিলটি শহরের প্রধান প্রধান সড়ক প্রদক্ষিণ শেষে জিরোপয়েন্টের সমাবেশে গিয়ে মিলিত হয়। সমাবেশে বক্তারা বলেন, রাজশাহীতে বিএনপির বিভাগীয় সমাবেশে জঙ্গিবাদের গডফাদার মিজানুর রহমান মিনুর দেয়া বক্তব্যে ষড়যন্ত্রের গন্ধ পাচ্ছি। তার দেয়া বক্তব্য প্রমাণ করে ’৭৫ এর ১৫ আগস্ট জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানকে স্বপরিবারে হত্যার পেছনে জিয়াউর রহমান জড়িত ছিল। মিনু মঞ্চে উঠে লম্বা-লম্বা ভাষণ দেন, অথচ তিনিই এক সময় ভোট চুরি করে একাধারে সিটি করপোরেশনের মেয়র ও সদর আসনের এমপি হয়েছিলেন। সে সময় তিনি রাজশাহীকে একটি ধ্বংসস্তুপ নগরীতে ঠেলে দিয়ে সিটি করপোরেশনকে বানিয়েছিলেন মাদক ও দুর্নীতির আখড়া।

মিনু রাজশাহীতে জঙ্গিবাদ ও সন্ত্রাসের জন্ম দিয়েছেন মন্তব্য করে ওয়ার্কার্স পার্টির নেতৃবৃন্দ আরও বলেন, ২০০৩ সালে বাগমারাকে কেন্দ্র করে যখন বাংলা ভাইয়ের উত্থান হয়, তখন এই মিনুই জঙ্গিবাদকে প্রতিষ্ঠিত করতে তাকে আর্থিক সহায়তা দিয়েছিলেন। আদালতে আজও বাংলা ভাইয়ের দেয়া সেই জবানবন্দী সংরক্ষিত আছে। যে নেতা এলাকার মানুষের ট্যাক্সের টাকা কুখ্যাত জঙ্গির হাতে তুলে দেয় সেই নেতার মুখে এতো বড়-বড় কথা শোভা পায় না।

যে ব্যক্তি প্রধানমন্ত্রীকে প্রাণনাশের ইঙ্গিতপূর্ণ বক্তব্য দেয় তাকে কোনভাবেই ছাড় না দেয়ার দাবি জানিয়ে তারা বলেন, গতকাল রাজশাহী সিটি করপোরেশনের মেয়র এএইএম খায়রুজ্জামান লিটন মিনুকে ক্ষমা চাওয়ার জন্য ৭২ ঘন্টার আল্টিমেটাম দিয়েছেন। আমরা মনে করি, মিনু যে অপরাধ করেছেন তা কোনভাবেই ক্ষমা করা যায় না। এর আগেও তিনি একাধিকবার প্রধানমন্ত্রী ও রাষ্ট্রের প্রতি ধৃষ্টতাপূর্ণ বক্তব্য দিয়ে ক্ষমার মধ্য দিয়ে পার পেয়েছেন। সুতরাং এবার যেন তাকে ক্ষমা করে আর সেই সুযোগ না দেয়া হয়। তিনি যে অপরাধ করেছেন তার জন্য তাকে আইনের আওতায় আনতেই হবে।

বাংলাদেশের ওয়ার্কার্স পার্টির রাজশাহী মহানগরের সম্পাদকমণ্ডলির সদস্য অ্যাড. এন্তাজুল হক বাবুর সভাপতিত্বে সমাবেশে বক্তব্য দেন- মহানগর কমিটির সাধারণ সম্পাদক দেবাশিষ প্রামানিক দেবু, সম্পাদকমণ্ডলির সদস্য বীর মুক্তিযোদ্ধা আবুল কালাম আজাদ, আব্দুল মতিন, নাজমুল করিম অপু প্রমুখ। সমাবেশ সঞ্চালনা করেন মহানগর কমিটির সদস্য ও ৭ নম্বর ওয়ার্ড কাউন্সিলর মতিউর রহমান মতি।

 

সোনালী/এমই

শর্টলিংকঃ