ক্যাব ও ভোক্তা-অধিকারের যৌথ বাজার মনিটরিং

  • 5
    Shares


স্টাফ রিপোর্টার: ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদপ্তর ক্যাবের প্রতিনিধিদের নিয়ে পবা উপজেলার খড়খড়ি বাজার ও আশরাফের মোড় এলাকায় এক যৌথ বাজার মনিটরিং কার্যক্রম পরিচালনা করা হয়।

মনিটরিং কার্যক্রমের নেতৃত্ব দেন রাজশাহী ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদপ্তরের উপ-পরিচালক অপূর্ব অধিকারী। তাকে সহায়তা করেন ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদপ্তরের সহকারী পরিচালক মাসুম আলী।

এছাড়াও উপস্থিত ছিলেন পবার ভ্যাটেরিনারী সার্জন ডা. খন্দকার সাগর আহমেদ, ক্যাব রাজশাহীর সাধারণ সম্পাদক গোলাম মোস্তফা মামুন, পবা উপজেলা কনজুমারস কমিটি সভাপতি কাজী নাজমুল ইসলাম ও পবা উপজেলার স্যানিটারি ইন্সপেক্টর জালাল উদ্দীন আহম্মদ।

মনিটরিং টিম খড়খড়ি বাজারে অবস্থিত কথা এগ্রো ফার্ম লিমিটেডের

রাজশাহী ডিপো পরিদর্শন করেন। যেখানে ফিড কোম্পানির ক্যাটাগরি-১ এর আওতায় কোন ডি এল এস লাইসেন্স ও ফিডের বস্তার গায়ে কোন নির্ধারিত মূল্য না থাকায় পরিদর্শন টিম উক্ত প্রতিষ্ঠানকে ১০ হাজার টাকা জরিমানা করে।

এছাড়াও মনিটরিং টিম আশরাফের মোড়ে অবস্থিত বিভিন্ন পোল্ট্রি ফিড ও ভেটেরিনারি ওষুধের দোকান মনিটরিং করেন। মনিটরিং টিম পরিদর্শনকালে বিভিন্ন দোকানের ডিএলএস রেজিস্টেশন দেখতে চান, এছাড়াও ফিড সংরক্ষণ ব্যবস্থা, মেয়াদকাল, নির্ধারিত মূল্যসহ আনুসঙ্গিক বিষয়াবলী পর্যবেক্ষণ করেন।

পর্যবেক্ষণ শেষে মনিটরিং টিম অতিসত্ত্বর ফিড ডিলার লাইসেন্স নবায়ন করার জন্য জরুরি ভাবে নির্দেশ প্রদান করেন অন্যথায় পরবর্তিতে তাদের বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা নেয়া হবে বলে হুশিয়ারি প্রদান করেন।

যৌথ মনিটরিং কার্যক্রমে অন্যান্যদের মধ্যে অংশগ্রহণ করেন ক্যাব প্রকল্পের মাঠ সমম্বয়কারী মিজানুর রহমান ও মাঠ কর্মকর্তা ফেরদৌস আহমেদ। দাতা সংস্থা ইউকে এইড এর অর্থায়নে ও আন্তর্জাতিক সংস্থা ব্রিটিশ কাউন্সিলের কারিগরি সহায়তায় ভোক্তা অধিকার বিষয়ক জাতীয় প্রতিষ্ঠান কনজুমারস্ অ্যাসোসিয়েশন অব বাংলাদেশ-(ক্যাব) কর্তৃক বাস্তবায়িত ইস্যু বেইজড্ প্রজেক্ট অন ফুড সেফটি গভার্নেন্স ইন পোল্ট্রি সেক্টর প্রকল্পের উদ্যোগে ও রাজশাহী ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদপ্তরের সহায়তায় গত মঙ্গলবার এই যৌথ বাজার মনিটরিং কার্যক্রম সম্পন্ন হয়।

 

সোনালী/এমই

শর্টলিংকঃ