করোনা নিয়ন্ত্রণে’ ইরানের ওপর নিষেধাজ্ঞা বাড়ালেন ট্রাম্প

এফএনএস: যুক্তরাষ্ট্রে করোনাভাইরাসে কেউ মারা না যাওয়া নিয়ে ডোনাল্ড ট্রাম্পের ‘অহংকার’ বেশিক্ষণ স’ায়ী হলো না। এ নিয়ে বক্তব্য রাখার মাত্র একদিন পরেই দেশটিতে এক ব্যক্তির মৃত্যু হয়েছে। তবে এখনও পরিসি’তি ‘সম্পূর্ণ নিয়ন্ত্রণে’ বলে দাবি করেছেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট। আর এই নিয়ন্ত্রণ ধরে রাখতে ইরানের ওপর নতুন করে ভ্রমণ নিষেধাজ্ঞা জারি করেছেন তিনি। ইরানে গত কয়েকদিনে হঠাৎ করেই লাফিয়ে লাফিয়ে বাড়ছে করোনায় আক্রান্ত ও মৃতের সংখ্যা। দেশটিতে এ পর্যন্ত অন্তত ৫৯৩ জনের শরীরে এই ভাইরাস ধরা পড়েছে, মারা গেছেন ৪৩ জন। তবে মার্কিন সংবাদমাধ্যমগুলোর দাবি, ইরানে দুই শতাধিক মানুষ করোনা আক্রান্ত হয়ে মারা গেছেন।
স’ানীয় সময় শনিবার বিকেলে এক প্রেস ব্রিফিংয়ে করোনাভাইরাস নিয়ন্ত্রণে গৃহীত ব্যবস’া সম্পর্কে ট্রাম্প বলেন, ‘এটা কঠিন ছিল, তবুও অনেক উন্নতি হয়েছে। যেকোনও পরিসি’তি মোকাবিলায় আমাদের দেশ সম্পূর্ণ প্রস’ত।’ এদিন ইরানের পাশাপাশি মার্কিন নাগরিকদের দক্ষিণ কোরিয়া ও ইতালিতেও ভ্রমণ না করার পরামর্শ দেয়া হয়েছে। এ ছাড়া মেক্সিকো সীমান্তেও নতুন করে কড়াকড়ি আরোপের পরিকল্পনা করছে ট্রাম্প প্রশাসন। শনিবার ওয়াশিংটনে করোনা আক্রান্ত পঞ্চাশোর্ধ্ব এক ব্যক্তি মারা যান। তার সমপ্রতি ভাইরাস সংক্রমিত কোনও এলাকা ভ্রমণের রেকর্ড নেই। ধারণা করা হচ্ছে, নিজ সমপ্রদায়ের মধ্যেই কারও কাছ থেকে ওই ব্যক্তির শরীরে ভাইরাস সংক্রমিত হয়েছিল। যুক্তরাষ্ট্রের রোগ নিয়ন্ত্রণ ও প্রতিরাধ কেন্দ্রের (সিডিসি) তথ্যমতে, দেশটিতে এ পর্যন্ত ৬৯ জনের শরীরে করোনাভাইরাস শনাক্ত হয়েছে। এর মধ্যে জাপানে কোয়ারেন্টাইনে রাখা প্রমোদতরী ডায়মন্ড প্রিন্সেস থেকে ফেরা ৪৪ যাত্রী, তিনজন চীনফেরত ও ২২ জন যুক্তরাষ্ট্রেই আক্রান্ত হয়েছেন। প্রাণঘাতী করোনাভাইরাস মোকাবিলায় প্রয়োজনীয় ব্যবস’া গ্রহণে ব্যর্থতার অভিযোগ গত শুক্রবার বিরোধী দলের কড়া সমালোচনা করেন ডোনাল্ড টাম্প। নিজ প্রশাসনের ব্যর্থতা নয়, বরং ডেমোক্র্যাট সরকারের অভিবাসন নীতির কারণেই এই ভাইরাস যুক্তরাষ্ট্রে ঢুকতে পারে বলে দাবি করেন তিনি। পাশাপাশি, করোনাভাইরাস নিয়ে দেশটিতে চলমান সমালোচনাকে বিরোধীদের ‘নতুন ধাপ্পাবাজি’ বলেও মন্তব্য করেন এ রিপাবলিকান নেতা। শনিবার আর প্রিয় হয়ে ওঠা ‘ধাপ্পাবাজি’ শব্দটি ব্যবহার না করেননি ট্রাম্প। তবে সমালোচনার জবাবে বলেছেন, ‘এই নিয়ে ভয়ের কোনও কারণই নেই’। করোনাভাইরাসের উৎস চীনে এ পর্যন্ত ২ হাজার ৮৭০ জন করোনাভাইরাসে মারা গেছেন, আক্রান্ত হয়েছেন প্রায় ৮০ হাজার। তাদের বিষয়ে ট্রাম্প বলেন, ‘দেখা যাচ্ছে চীন অসাধারণ উন্নতি করছে, তাদের (আক্রান্তের) সংখ্যা কমে আসছে।’ সোমবার ফার্মাসিউটিক্যাল কোম্পানিগুলোর সঙ্গে বৈঠকে করোনাভাইরাসের প্রতিষেধক আবিষ্কারের বিষয়ে কথা বলবেন বলেও জানিয়েছেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট। এছাড়া, করোনাভাইরাসের কারণে অর্থনৈতিক মন্দা কাটাতে যুক্তরাষ্ট্রের ফেডারেল রিজার্ভ ব্যাংককে যথাযথ ব্যবস’া নেয়ার নির্দেশ দিয়েছেন তিনি।

শর্টলিংকঃ