করোনা আতঙ্কে নগরীর বিনোদন কেন্দ্রগুলো ফাঁকা

স্টাফ রিপোর্টার: করোনার কারণে নগরীর বিনোদন কেন্দ্রগুলো এখন ফাঁকা। নগরীর শহিদ এ এইচ এম কামারুজ্জামান কেন্দ্রীয় উদ্যান, শহিদ জিয়া পার্ক, লালশাহ মুক্তমর্ঞ্চ, পদ্মা গার্ডেন নগরীর বিনোদন কেন্দ্রগুলোর অন্যতম। এখানে সকাল হলেই প্রতিদিনই বিনোদনপ্রিয় মানুষে ঠাঁসা থাকতো। নগরীর লালন শাহ মুক্তমঞ্চে প্রতিদিনই মঞ্চস্থ হতো নাটক, আয়োজিত হতো নাট্ট্যোৎসব। এর সাথে আয়োজন করা হতো সঙ্গীতানুষ্ঠান। এখানে দেশ-বিদেশের শিল্পীরাও অভিনয় করে, গান গেয়ে দর্শক শ্রেতাদের মন জয় করতেন।
এছাড়াও নগরীর আরেক বিনোদনপ্রিয় স্পর্ট হচ্ছে শহিদ এএইচএম কামারুজ্জামান কেন্দ্রীয় উদ্যান। এখানে দেশের বিভিন্ন স্থান থেকে বিভিন্ন প্রতিষ্ঠান পিকনিকসহ বিনোদনের জন্য আসতো। বিনোদনপ্রিয় মানুষে থাকতো ঠাসা। নগরীর আরেক বিনোদন কেন্দ্র শহিদ জিয়া শিশু পার্ক। এখানে নগরীর শিশু-নারীসহ আসতো বিনোদনপ্রিয় মানুষ।
নগরীর আরেক বিনোদন স্পর্ট হচ্ছে পদ্মা গার্ডেন। এখানে বিকাল থেকে সন্ধ্যা পর্যন্ত চলতো নর-নারী, শিশু-যুবার মিলন মেলা। সবারই মিলনে হয়ে উঠতো আনন্দ ঘনপরিবেশের। এখানে নগরীর বিভিন্ন স্থান থেকে এসে আনন্দ উপভোগ করতো সকল শ্রেণির মানুষ।
এ কয়েক দিনে করোনা ভাইরাসের কারণে এখন ফাঁকা হয়ে লালন শাহ পার্কসহ উক্ত পার্কগুলো।
এখানে রাজশাহী জেলা প্রশাসনের নিষেধাজ্ঞার কারণে সেখানে নেই কোন দর্শক। দর্শকের অভাবে কোন অনুষ্ঠানই সফল করতে পারছে না তারা। নাট্ট্যদল ও সাংস্কৃতিক সংগঠনগুলো চরম দুশ্চিন্তায় ও হতাশার মধ্যে তাদের সংস্কৃতিচর্চায় পড়েছে ভাটা পড়েছে।
এদিকে গতকাল পদ্মানদীর বাঁধের উপর ভ্রাম্যমাণ দোকান-পাট বন্ধে ভ্রাম্যমাণ আদালত চালিয়েছে জেলা প্রশাসন। গতকাল তাদেরকে সতর্ক করে দেয়া হয়েছে। এর পরেও দোকান খুললে শাস্তিমূলক ব্যবস্থা নেওয়া হবে বলে জানানো হয়েছে।

শর্টলিংকঃ