করোনা অবহেলার পরিণতি ভয়ঙ্কর হতে পারে

  • 6
    Shares

একদিনে করোনা আক্রান্ত হয়ে মৃত্যু শতক ছাড়িয়ে গেছে। গত শুক্রবার ১৬ এপ্রিল দেশে ১০১ জনের মৃত্যু হয়েছে যা একদিনে সর্বোচ্চ মৃত্যু। এর আগের দিন মারা যান ৯৪ জন। তার আগের দিন ১৪ এপ্রিল ৯৬ জনের মৃত্যু হয়েছে। এ নিয়ে দেশে করোনায় মৃত্যুর সংখ্যা ১০ হাজার ১৮২ জনে এসে দাঁড়িয়েছে।

দেশে করোনার দ্বিতীয় ঢেউ আশঙ্কার চেয়ে ভয়াবহ আকার ধারণ করতে যাচ্ছে। যে হারে সংক্রমণ বাড়ছে তাতে হাসপাতালগুলোতে গুরুতর রোগীদেরও ভর্তি করা যাচ্ছে না। আইসিইউ শয্যার অভাবে এক হাসপাতাল থেকে আরেক হাসপাতালে ছোটাছুটি করা অবস্থাতেই রোগীর মৃত্যুর খবর পাওয়া যাচ্ছে। অক্সিজেন সঙ্কট দেখা দেয়ার আশঙ্কাও উড়িয়ে দেয়া যাচ্ছে না।

এমন অবস্থায় শতভাগ মাস্ক ব্যবহার ও কঠোরভাবে স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলা না হলে সংক্রমণ বৃদ্ধি দেশের চিকিৎসা ব্যবস্থায় ধস নামিয়ে দিতে পারে। লকডাউন মেনে চলার পাশাপাশি করোনা শনাক্ত ও টিকা দেয়ার গতি বাড়ানোও অপরিহার্য হয়ে উঠেছে।

এটা ঠিক যে, স্বাস্থ্য ব্যবস্থাসহ দেশের সামগ্রিক ব্যবস্থাপনায় প্রয়োজনের তুলনায় ঘাটতি রয়েছে। এর মধ্যেই সমন্বিত ব্যবস্থাপনা নিশ্চিত করা গেলে করোনা সংক্রমণের ঊর্ধ্বগতির লাগাম টেনে ধরা অসম্ভব নয়। তবে এজন্য সাধারণ মানুষের সচেতন ভূমিকা ও করোনা প্রতিরোধে সক্রিয় অংশগ্রহণ নিশ্চিত করা দরকার।

রাজশাহীতেও করোনা পরিস্থিতির অবনতি অব্যাহত রয়েছে। ২৪ ঘণ্টায় নতুন শনাক্ত হয়েছেন ৪৫ জন। মারা গেছেন দুইজন। এ নিয়ে জেলায় করোনায় আক্রান্ত হয়ে মৃত্যুর সংখ্যা দাঁড়ালো ৩৬ জন। করোনা টিকা নেয়ার পরও রাজশাহী সদর আসনের সংসদ সদস্য ফজলে হোসেন বাদশার করোনায় আক্রান্ত হওয়ার ঘটনা ছিল নগরীর আলোচিত সংবাদ। শুক্রবার নগরীর মসজিদে মসজিদে বাদশার সুস্থতা কামনা করে দোয়া ও মোনাজাত হয়েছে। পাশাপাশি জাতীয় চার নেতার অন্যতম শহিদ এএইচএম কামারুজ্জামানের বোন ও সিটি মেয়র এএইচএম খায়রুজ্জামান লিটনের ফুফু মঞ্জুরা বেগম চৌধুরীর করোনায় চিকিৎসাধীন অবস্থায় মৃত্যুর খবরও ছিল আলোচনায়। রামেক হাসপাতালে করোনা আক্রান্তে মারা গেছেন মহিলা পরিষদ নেত্রীসহ আরেক নারী। এ সব ঘটনার পরও সাধারণ মানুষের চলাচলে অসাবধনতা এখনও চোখে পড়ছে, যা দুর্ভাগ্যজনক ছাড়া আর কি ?

মানুষ নিজে সচেতন না হলে পুলিশ-প্রশাসন দিয়ে মাস্ক ব্যবহার ও স্বাস্থ্যবিধি পালন নিশ্চিত করা কঠিন। লকডাউনে গরিব ও নিম্ন আয়ের মানুষের টানাটানির সংসারে নতুন সমস্যা হলেও শিথিলতা কোনোভাবেই কাম্য নয়। করোনা অবহেলার পরিণতি যে ভয়ঙ্কর হতে পারে সেটা ভুলে যাওয়া মহা বিপদের কারণ হতে পারে।

 

সোনালী/এমই

শর্টলিংকঃ