করোনায় কাজ হারানো শ্রমিকেরা ভালো নেই: বাদশা

অনলাইন ডেস্ক: বাংলাদেশের ওয়ার্কার্স পার্টির সাধারণ সম্পাদক ফজলে হোসেন বাদশা এমপি বলেছেন, ‘রাষ্ট্রায়ত্ত ২৫টি পাটকলে প্রায় ৭০ হাজার শ্রমিক নিয়োজিত ছিলেন। হঠাৎ মিল বন্ধ করে দেওয়ায় ওই শ্রমিকেরা এখন বেকার হয়ে পড়েছেন। করোনার কারণে তাঁরা অন্য কোথাও কাজ করতে পারছেন না। ফলে শ্রমিক পরিবারগুলো এখন অসহায় ও মানবেতর জীবন যাপন করছে।’

বুধবার (২৫ নভেম্বর) বিকেলে শ্রমিক নেতা শফিউদ্দিন আহমেদের এক ভার্চুয়াল শোকসভায় বক্তব্য দিতে গিয়ে তিনি এ কথা বলেন। শোকসভায় সভাপতিত্ব করেন ওয়ার্কার্স পার্টির সভাপতি রাশেদ খান মেনন এমপি।

শোকসভায় রাজশাহী সদর আসনের সাংসদ ফজলে হোসেন বাদশা বলেন, ‘বর্তমান সময়ে বাংলাদেশে শ্রমজীবী মানুষ সবথেকে কষ্টে আছে। দারিদ্রের হার নেমে এসেছে ৪৪ শতাংশে। দেশের অর্ধেক মানুষ যখন দরিদ্র হয়ে যায়, দুঃখ-কষ্টে থাকে তখন প্রকৃতপক্ষে দেশের অবস্থা কি দাঁড়ায় তা আমরা বুঝি। এই অবস্থা থেকে পরিত্রাণ পেতে শ্রমিক শ্রেণির ঐক্যবদ্ধ আন্দোলনের বিকল্প দেখি না।’

সদ্য প্রয়াত শ্রমিক নেতা শফিউদ্দিন আহমেদের রাজনৈতিক স্মতির কথা তুলে ধরে বাদশা বলেন, কমিউনিস্ট নেতা হিসেবে শফিউদ্দিন আহমেদে অনুকরণীয় দৃষ্টান্ত রেখে গেছেন। তার কৃতিত্ব যেন ভোলার মতো নয়। শ্রমজীবী মানুষের অধিকার আদায়ের সংগ্রামে তিনি সবসময় সামনের কাতারে থেকে নেতৃত্ব দিয়েছেন। তার মতো সর্বজন প্রিয় একটি মানুষের চলে যাওয়া শ্রমিক সংগ্রামের জন্য এক অপূরনীয় ক্ষতি, যা পূরণ হওয়ার নয়।

ভার্চুয়াল শোকসভায় এছাড়াও বক্তব্য রাখেন- স্কপের সাবেক সমন্বয়ক শ্রমিক দলের সাবেক সভাপতি নজরুল ইসলাম খান, ওয়ার্কার্স পার্টির পলিটব্যুরো সদস্য আনিসুর রহমান মল্লিক, ড. সুশান্ত দাস, মাহমুদুল হাসান মানিক। শোকসভা সঞ্চালনা করেন দলের পলিটব্যুরো সদস্য কামরূল আহসান।

সোনালী/আরআর

শর্টলিংকঃ