করোনাকে অবহেলা আর নয়

শীত বাড়ার সাথে পাল্লা দিয়েই যেন বাড়ছে করোনা সংক্রমণ। দেশে করোনায় আক্রান্ত নতুন রোগী, মৃত্যু ও শনাক্তের হার বাড়ছেই। গত এক সপ্তাহে নতুন রোগীর সংখ্যা বেড়েছে আগের সপ্তাহের তুলনায় প্রায় ৪ শতাংশ। প্রতিদিন গড়ে ২ হাজার ১৯১ জন রোগী শনাক্ত হয়েছেন। প্রতিদিন গড়ে মারা গেছেন প্রায় ৩৩ জন। আগের সপ্তাহে দৈনিক মৃত্যুর গড় ছিল ২৫। এক সপ্তাহে মৃত্যু বেড়েছে ৩০ শতাংশ। শীত বাড়লে পরিস্থিতির আরও অবনতির আশঙ্কা করছেন সংশ্লিষ্ট সবাই।

রাজশাহীতেও বাড়ছে করোনা রোগী। প্রথম ধাপের করোনার চেয়ে দ্বিতীয় ধাপের করোনা অনেক বেশি আগ্রাসী বলে মনে করছেন স্বাস্থ্য বিশেষজ্ঞরা। এখন যারা আক্রান্ত হচ্ছেন তাদের বেশির ভাগই মারা যাচ্ছেন। তাই সাবধানতা অবলম্বনে অবহেলার বিরুদ্ধে সতর্কবানী উচ্চারণ করেছেন তারা।

জনস্বাস্থ্যবিদদের মতে টিকা না আসা পর্যন্ত সংক্রমণ প্রতিরোধের প্রধান উপায় স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলা নিশ্চিত করা। বিশেষ করে ঘরের বাইরে বের হলে, জনসমাগম পূর্ণ এলাকায় মুখে মাস্ক পরা শতভাগ নিশ্চিত করা। এ ছাড়া কিছু সময় পরপর সাবান পানি দিয়ে হাত ধোয়া, পুষ্টিকর খাবার খাওয়া, হালকা ব্যায়াম করা, অর্থাৎ রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা উন্নত রাখা। শীতের সংক্রমণ থেকে রক্ষা পাওয়াও জরুরি।

অথচ ঘরে-বাইরে এ সব বিষয়ে সতর্কতা কমই লক্ষ্য করা যাচ্ছে। বিশেষ করে মাস্ক পরা লোকজনের সংখ্যা ইদানিং কিছুটা বাড়লেও এখনও অনেকেই মাস্ক ছাড়াই চলাফেরা করছেন। সামাজিক ও শারীরিক দূরত্ব বজায় রাখার বালাই নেই। এর বিরুদ্ধে প্রচারণা ও অভিযান চললেও তা ধারাবাহিক এবং পরিকল্পিত না হওয়ায় উদ্বেগ থেকেই যাচ্ছে। তাই করোনাকে অবহেলা যে কতটা বিপদজনক হয়ে উঠেছে তা বলার অপেক্ষা রাখে না।

সঠিকভাবে স্বাস্থ্যবিধি মেনে না চললে সংক্রমণ বেড়ে যাওয়ার আশঙ্কা জোরালো হয়ে ওঠায় সতর্কতা বৃদ্ধি জরুরি হয়ে উঠেছে। অবহেলার দিন আর নেই।

সোনালী/এমই

শর্টলিংকঃ