কমদামের সেরা স্মার্টফোনগুলোর নাম

অনলাইন ডেস্ক: হাতের মোবাইল কম্পিউটিং যন্ত্র হলো স্মার্টফোন। ফিচার ফোনের সাথে এর পার্থক্য হলো, এটি তুলনামূলক বেশি শক্তিশালী হার্ডওয়্যার সক্ষমতা এবং বিস্তৃত মোবাইল অপারেটিং সিস্টেম, যেগুলো মূল সুবিধা যেমন ফোন কল, বা টেক্সট বার্তার সাথে সাথে আরও বেশি সফটওয়্যার, ইন্টারনেট (ওয়েব ব্রাউজিং সহযোগে), এবং মাল্টিমিডিয়া সুবিধা (ক্যামেরা, মোবাইল গেমিং) ইত্যাদি প্রদান করে। স্মার্টফোনে অনেকগুলো সেন্সর রয়েছে এবং তারবিহীন যোগাযোগও সমর্থন করে যন্ত্রগুলো।

প্রথমদিকে স্মার্টফোনগুলোর মূল লক্ষ্য ছিলো এন্টারপ্রাইজ মার্কেট, যেগুলো পার্সোনাল ডিজিটাল এসিসট্যান্টের সুবিধাসমূহ মুঠোফোনে আনতে চাচ্ছিলো। ২০০০ এ, ব্ল্যাকবেরি, নকিয়ার সিম্বিয়ান প্ল্যাটফর্ম, এবং উইন্ডোজ ফোন জনপ্রিয়তা পেতে শুরু করে।

২০০৭ সালে আইফোন মুক্তির পর থেকেই স্মার্টফোনগুলোতে পরিবর্তন আসতে থাকে, যার মধ্যে আছে বড় টাচ সেন্সিটিভ স্ক্রিন, মাল্টি টাচ জেসচার, মোবাইল এপ্লিকেশন ডাউনলোডের সুবিধাসহ আরও অনেককিছু। ২০১২ সালের তৃতীয়ার্ধে জানা যায়, বিশ্বব্যাপী ১০০ কোটি স্মার্টফোন ব্যবহারকারী রয়েছে। ২০১৩ সালের শুরুর দিকে স্মার্টফোনের এ জনপ্রিয়তায় ফিচার ফোনের বাজার ছোট হতে থাকে। যা এখন বিলুপ্তির পথে।

বর্তমানে মানুষের অবসরের সঙ্গী স্মার্টফোন। পাঠকদের জন্য থাকছে এমনই কিছু সেরা স্মার্টফোনের তালিকা ও বাজার দর-

 

সোনালী/এমই

শর্টলিংকঃ