এগোচ্ছে মডেল মসজিদ নির্মাণ

তৈয়বুর রহমান: এগিয়ে চলেছে রাজশাহীতে ১১টি মডেল মসজিদ নির্মাণের কাজ। সরকারি সিদ্ধান্ত অনুযায়ী ধর্মীয় আচার অনুষ্ঠান সুষ্ঠুভাবে পালনের লক্ষ্যে দেশে ৫৬০টি মডেল মসজিদ নির্মাণ প্রক্রিয়াও এগিয়ে চলেছে। এর ১১টি নির্মিত হবে রাজশাহী জেলায়। যার মধ্যে উপজেলা পর্যায়ে ৯টি ও মহানগরীতে ২টি, এই ১১টি মসজিদের জন্য প্রাক্কলিত ব্যয় বরাদ্দ ধরা হয়েছে প্রায় দেড় শ কোটি টাকা।

সংশ্লিষ্ট সূত্র জানায়, দেশের প্রতিটি জেলা ও উপজেলায় একটি করে মোট ৫৬০টি মডেল মসজিদ ও ইসলামি সাংস্কৃতিক কেন্দ্র স্থাপন (১ম সংশোধিত) শীর্ষক প্রকল্পটি ২০১৮ সালের ২৬ জুন তারিখ একনেক সভায় অনুমোদন হয় এবং ২০১৭ হতে ২০২০ সালের এপ্রিল মেয়াদে বাস্তবায়নের জন্য ৮৭২২ কোটি টাকা প্রাক্কলিত ব্যয় ধরা হয়।
উক্ত প্রকল্পের অধীন রাজশাহীতে যে ১১টি মডেল মসজিদ নির্মিত হচ্ছে এর মধ্যে রয়েছে নগরীর হেতম খান বড় মসজিদ এবং উপশহর কেন্দ্রীয় জামে মসজিদ। এ দুটি মসজিদের ব্যয় বরাদ্দ ধরা হয়েছে ৩১ কোটি ২৩ লাখ ৬২ হাজার টাকা। এর মধ্যে হেতম খান মসজিদের জন্য ১৫ কোটি ৬১ লাখ ৮০ হাজার টাকা এবং উপশহর কেন্দ্রীয় জামে মসজিদের জন্য ১৫ কোটি ৬১ লাখ ৮১ হাজার টাকা। ইসলামিক ফাউন্ডেশন রাজশাহী বিভাগীয় কার্যালয় সূত্রে এ তথ্য জানা গেছে।
এরই মধ্যে রাজশাহী উপশহর কেন্দ্রীয় মডেল জামে মসজিদের নির্মাণ কাজ শুরু হয়েছে। মসজিদটির জন্য ৪ তলা ভবন নির্মিত হবে বলে জানানো হয়েছে। একই সাথে নগরীর আরেকটি মডেল মসজিদ হবে হেতম খান বড় মসজিদ। সেটাও ৪ তলা ভবনবিশিষ্ট হবে বলে তারা জানান।
এদিকে রাজশাহী উপজেলা পর্যায়ের মডেল মসজিদগুলোর মধ্যে চারঘাট উপজেলা মডেল মসজিদের জন্য ১৩ কোটি ৪১ লাখ ৮০ হাজার, বাঘা ১২ কোটি ৬৫ লাখ ৪৩ হাজার. পবা উপজেলা মসজিদের জন্য ১২ কোটি ৬৫ লাখ ৪৩ হাজার, গোদাগাড়ী, তানোর, পুঠিয়া, দুর্গাপুর,বাগমারা উপজেলা মডেল মসজিদের জন্য সমপরিমাণ প্রাক্কলিত ব্যয় বরাদ্দ ধরা হয়েছে। এসব মডেল মসজিদ প্রতিষ্ঠার দায়িত্ব ইসলামি ফাউন্ডেশনের এবং বাস্তবায়ন করছে গণপূর্ত অধিদপ্তর রাজশাহী। উপজেলা পর্যায়ের সকল মডেল মসজিদ হবে ৩ তলা বিশিষ্ট। ইতোমধ্যে অনেক উপজেলাতেও মডেল মসজিদ নির্মাণ কাজ শুরু প্রক্রিয়াধীন রয়েছে বলে ঐ সূত্র থেকে জানা গেছে।
২০১৯ সালের ২২ অক্টোবর বাংলাদেশ সচিবালয় ঢাকা-এর ধর্মবিষয়ক মন্ত্রণালয়ের সভাকক্ষে প্রকল্প পরিচালকের উপস্থিতিতে অন্যান্য কর্মকর্তাদের এক সভায় প্রতিটি জেলা ও উপজেলায় একটি করে মোট ৫৬০টি মডেল মসজিদ ও ইসলামিক সাংস্কৃতিক কেন্দ্র স্থাপনের বিষয়ে আলোচনা করা হয়। ৫৬০টি মডেল মসজিদ ও ইসলামিক সাংস্কৃতিক কেন্দ স্থাপন (১ম সংশোধিত) শীর্ষক প্রকল্পের আওতায় ১৫ অক্টোবর ২০১৯ পর্যন্ত ৫২৫টি স্থানে ডিজিটাল সার্ভে, ৫২৩ টি স্থানের মৃত্তিকা পরিক্ষা, ৫০৫টি স্থানে দরপত্র আহবান, ৪৮২টি স্থানে কার্যাদেশ প্রদান, ৩১০টি স্থানের নির্মাণ কাজ শুরু এবং অধিগ্রহণযোগ্য ১৫৭ স্থানের মধ্যে ২২টি জমি অধিগ্রহণ কার্যক্রম সম্পন্ন হয়েছে।
প্রকল্পের আওতায় মডেল মসজিদ নির্মাণের নিমিত্তে ইসলামিক ফাউন্ডেশনের নামে অধিগ্রহণকৃত স্থানে স্থাপনা ও গাছপালা অপসারণের দায়িত্ব পালন করবে।
এ সম্পর্কে ইসলামিক ফাউন্ডিশন রাজশাহী বিভাগীয় কার্যালয়ের পরিচালক হারেজ আহমেদ বলেন, অতীতে কোন সরকারই মসজিদ মাদ্রাসার উন্নয়নে কোন উদ্যোগ গ্রহণ করেনি। ফলে মুসল্লিগণ সমস্যার মধ্য দিয়েই ধর্মীয় আচার অনুষ্ঠানাদি পালন করে এসেছেন। তাই মুসল্লিরা যেন সুষ্ঠুভাবে নামাজ আদায়সহ ইসলামী সংস্কৃতির বিকাশে কাজ করতে পারেন সে জন্য এই উদ্যোগ নিয়েছে বর্তমান সরকার । সারাদেশে এক সাথে সকল মডেল মসজিদের নির্মাণ কাজ শেষ হলে ধার্মীয় আচার অনুষ্ঠান পালনে এক যুগান্তকারী পরিবর্তন আসবে।

শর্টলিংকঃ