রাজশাহীর তিনজনের নমুনায় করোনা পজিটিভ, একজন পুরনো রোগী

স্টাফ রিপোর্টার: টানা ১০ দিন পর বৃহস্পতিবার (১৪ মে) একদিনেই রাজশাহীর তিনজনের শরীরে করোনাভাইরাস শনাক্ত হয়েছে। রাজশাহী মেডিকেল কলেজের (রামেক) ল্যাবে তাদের নমুনা পরীক্ষায় করোনা শনাক্ত হয়। অবশ্য এই তিনজনের মধ্যে একজন পুরনো রোগী। তার বাড়ি জেলার মোহনপুরে। গেল মাসেই তার করোনা শনাক্ত হয়েছিল। তিনি করোনামুক্ত হয়েছেন কি না তা জানতে আবারও পরীক্ষা করা হয়েছিল। কিন্তু ১৬ দিন পরও তার রিপোর্ট পজিটিভ।

নতুন আক্রান্ত দুইজনের বাড়ি রাজশাহীর বাগমারা উপজেলায়। তারা স্বামী-স্ত্রী। তারা গাজিপুরে একটি তৈরি পোশাক কারখানায় কাজ করতেন। সেখান থেকে গ্রামে আসায় নমুনা পরীক্ষা করা হলো। এতেই তাদের করোনা শনাক্ত হলো।  এ নিয়ে জেলায় মোট ১৯ জন করোনায় আক্রান্ত হলেন। এদের মধ্যে একজন মারা গেছেন। তার বাড়ি বাঘায়। রাজশাহীর সংক্রমক ব্যাধি (আইডি) হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তিনি মারা যান।

এর আগে সর্বশেষ গত ৪ মে জেলার তানোর থানার এক পুলিশ কনস্টেবলসহ দুইজনের করোনা শনাক্ত হয়েছিল। রাজশাহীতে ইতোমধ্যে করোনামুক্ত হয়েছেন ছয়জন। এখন অসুস্থ অবস্থায় থাকলেন ১২ জন।

রামেকের ভাইরোলজি বিভাগের প্রধান ডা. সাবেরা গুলনাহার জানান, বৃহস্পতিবার দুই শিফটে ল্যাবে ১৮৮টি নমুনা নিয়ে পরীক্ষা শুরু করা হয়। তবে ত্রুটি থাকায় ২১টি নমুনার রিপোর্ট হয়নি। রিপোর্ট পাওয়া গেছে ১৬৭টির। এর মধ্যে মোট চারজনের নমুনায় করোনা শনাক্ত হয়েছে। এদের একজনের বাড়ি নওগাঁ। তিনি একজন নারী। অন্য দুইজন রাজশাহীর বাগমারার বাসিন্দা। মোহনপুরেরও পুরনো এক রোগীর নমুনায় করোনা পজিটিভ এসেছে। তাদের বিষয়টি সিভিল সার্জনকে জানানো হয়েছে।

রাজশাহীর সিভিল সার্জন ডা. এনামুল হক জানান, শনাক্ত হওয়া তিনজনের মধ্যে একজন পুরনো রোগী। বাগমারার নতুন দুইজন আক্রান্ত হওয়ার বিষয়টি উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তাকে জানানো হয়েছে। তিনি এই দম্পত্তির চিকিৎসার ব্যবস্থা করবেন। পুলিশ তাদের বাড়ি লকডাউন করবে বলেও জানান তিনি।

রাজশাহী জেলায় গত ১২ এপ্রিল প্রথম করোনাভাইরাস সংক্রমিত কোভিড-১৯ রোগী শনাক্ত হয়। এ পর্যন্ত যে ১৯ জন আক্রান্ত হয়েছেন তাদের সবার বাড়ি বিভিন্ন উপজেলায়। রাজশাহী মহানগরী এবং জেলার চারঘাট ও গোদাগাড়ী উপজেলা এখনও করোনামুক্ত রয়েছে।

সোনালী সংবাদ/আর.আর

শর্টলিংকঃ